Home সাহিত্য

সাহিত্য

করল হরণ প্রাণ

হামীম রায়হানশরৎ এলো নেমে, এই এল বৃষ্টি আবার এ বুঝি যায় থেমে। ঐ যে কাশের ফুল, ফুল নয় বুঝি, নদীর কানে দুলছে সাদা দুল। শিউলি গাঁথা মালা, ইলশেগুঁড়ি বৃষ্টি বুঝি বাড়ায় মনের জ্বালা। পাকা তালের স্বাদ, হরকে প্রকার তৈরি পিঠায় সব যে দিলাম বাদ। মহুয়া ছড়ায়...

পল্লী গাঁ

গোলাম আযমকোন উপমায় লিখব আমি পল্লী গাঁয়ের কথা, পল্লী গাঁয়ের ঐ মাটিতে আছে সকল স্মৃতি গাঁথা। নয়নাভিরাম সবুজে ঘেরা আমার গাঁয়ের রুপ, উৎসব আনন্দে মেতে উঠে পাড়া মহল্লায় ধূম। কঁচিকাঁচার হইহুলোরে থাকে শোরগোল সারাবেলা, বসে থেকে উপভোগ করি হরেক রকম খেলা। আঁকা-বাঁকা মেঠোপথ চলেছে গ্রাম থেকে প্রান্তরে, বর্গা...

প্রিয় মাতৃভূমি

এইচ.এম. মাহফুজুর রহমানসবার চেয়ে প্রিয় যে আমার দেশ বাংলাদেশ চেষ্টা করে দেখ কি কেউ কেড়ে নিতে পার কিনা!এ দেশেতেই জন্ম যে আমার এই দেশেতেই মরবো দেশের জন্য জীবন বাজি রেখে লড়বো।লাল সবুজের পতাকা নিয়ে সবার কাছে বলবো, আমার প্রিয় মাতৃভূমি শেখ মুজিবের বাংলাদেশ।

স্বর্ণ কুঠির

মোঃ সোহেল রানাআমার দেশের মাটি, সোনার চেয়ে খাঁটি, ভিন দেশিরা চাইলে দিবো কি সোনার মাটি? রক্ত দিয়ে গড়েছি, হারিয়ে যেতে দিবো না আমি, আমার দেশের মাটি, সোনার চেয়ে খাঁটি। কে নিবেরে স্বর্ন মহল, স্বর্নের দামে দিবো এখন, যদি সে...

চন্দ্রমুখী

মোহাঃ জোনাব আলীচন্দ্র! হ্যাঁ, তুমি হেমন্তের চন্দ্রের মতই স্বচ্ছ, পরিস্কার, সুনির্মল। ঐ পুকুরের কালো জলে তোমার সিক্ত নীলাম্বরী ফেলেছিল আলোকের উন্মুক্ত প্রজ্জ্বলতা। কাকের মত তোমার কালো কেশে আর পুকুরের অম্বুর মধ্যে বৈশাদৃশ্যের এতটুকু লেশ মাত্র ছিলনা। পানিতে আধো পা ডুবিয়ে নির্লজ্জের মত দেখতে আমায় আমিও...

হতভাগা কপাল

জীএম আযমভালো খাবার দেখলে আসে জিহ্বায় আগায় জল, ইচ্ছে হয় খাব কিনে টাকা কোথায় বল? পান্তা ভাতে লবন মরিচ তিন বেলাতে খায়, পাশের বাড়ির রান্নার ঘ্রাণ শুকে দিন যায় বউ-ছেলে কাঁদে ক্ষুধার জ্বালায় আমার দিকে চেয়ে, বুভুক্ষু সেই মুখটি দেখলে অশ্রু পড়ে বেয়ে হতভাগা কপালে জুটেনি খোরমা...

আমার মাকে

হামীম রায়হানতোমার অসুখ শুনে আমার মন ভালো নাই মা, আমি বড় অদম ছেলে, আমায় করো ক্ষমা। পারি না কাছে থেকে আমি করতে সেবা তোমার, জানি তুমি কষ্ট পেয়েও সুখ চেয়ে যাও আমার মাগো আমি পারছি না তোরা খতে তোমায় দূরে, তোমার মলিন মুখ আমায় খাচ্ছে...

এবং দুটি মৃত্যু

<রেহেনা ইয়াসমিন বিথী> ১. শোকে স্তব্ধ আজ বিশাল বাড়িটি। মিসেস চৌধুরী আজ পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে চলে গেলেন! রেখে গেলেন এই বিশাল বাড়িতে তাঁর সাজানো সংসার, উচ্চপদস্থ ছয়টি ছেলেমেয়ে, আর যত্নে গড়া সুসজ্জিত ফুলের বাগান। বয়স...

বিপরীত মেরু

<মোহাঃ জোনাব আলী>তুমি যতটা ভাল আছো আমি ততটাই মন্দ আছি। আর তোমারতো ভাল থাকারই কথা যেহেতু আমার জীবনে এখন নীরবতা। তোমার জীবনে যতটা খুশির সুর বইছে আমার জীবনে ততটাই কান্নার ভার সইছে। তোমার তো এখন রঙ্গিন ফাগুন মৌসুম আর আমার চোখে...

বর্ষার কদম ফুল

<হামীম রায়হান>একটা ভালো বেতনের চাকরি ও ঘরে নতুন বৌ রুমা। চিমচাম, সাজানো সংসার আকাশের। ঝামেলা নেই, নেই চাহিদার বাড়াবাড়ি। অফিস থেকে সন্ধ্যার আগে আগে বাসায় ফিরে আকাশ। গোধুলির আলোয় দু’জন পাশাপাশি বারান্দায় দাঁড়িয়ে সূর্যাস্ত...