চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর নির্বাচন নিয়ে পৌর আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলন

11

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনকে সামনে রেখে সংবাদ সম্মেলন করেছে পৌর আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. মোখলেসুর রহমানের নির্বাচনী কার্যক্রমের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও বিভ্রান্তমূলক তথ্য ছড়ানোর প্রতিবাদে এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়।
বুধবার দুপুর ১২টায় জেলা শহরের উদয়ন মোড়স্থ আলাউদ্দিন চাইনিজ ও ফাস্টফুডের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরেন পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ আব্দুল জলিল।
অধ্যক্ষ জলিল লিখিত বক্তব্যে বলেন, আগামী ৩০ নভেম্বর চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন হতে যাচ্ছে। এই নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মো. মোখলেসুর রহমানসহ চারজন মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে একজন প্রার্থী, যিনি গত ২০১৫ সালের পৌর নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী ছিলেন, এবারো মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন কিন্তু মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সিদ্ধান্তকে অমান্য করে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এবং সংগঠনের গঠনতন্ত্রের ধারাবাহিকতায় দল তাকে ইতোমধ্যে বহিষ্কার করেছে। তিনি গত ২১ নভেম্বর সাংবাদিক সম্মেলন করে আমাদের দলীয় প্রার্থীর সম্পর্কে নানা ধরনের অপপ্রচার ও বিভ্রান্তমূলক তথ্য প্রদান করেছেন। তিনি বলেন, পরাজয়ের আভাস পেয়ে তিনি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে নানা রকম বিতর্কিত কাজ করছেন এবং সম্পুর্ণ অন্যায়ভাবে নৌকার প্রার্থী মোখলেসুর রহমানের উপর দোষ চাপানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ রোকনুজ্জামান রোকন।
গত ২১ নভেম্বর সাংবাদিক সম্মেলনে সামিউল হক লিটন যেসব অভিযোগ উত্থাপন করেছিলেন বুধবার পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল জলিল সেব অভিযোগ খ-ন করে বলেন- সামিউল হক লিটন যেসব অভিযোগ উত্থাপন করেছেন তা সত্য নয়। সামিউল হক লিটন নির্বাচন কমিশনে শুধুমাত্র আমাদের দলীয় প্রার্থীর নামে গুজব ও বিভ্রান্ত করার জন্য মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও মনগড়া অভিযোগ করেছেন।
জলিল বলেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ দীর্ঘ ৭ দশকের রাজনৈতিক পথ পরিক্রমায় অনেক চড়াই উতরাই পার করে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমরা বদ্ধপরিকর। আপনারা নিশ্চয় জানেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শহর একটি শান্তিপূর্ণ শহর। আসন্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনের প্রচারের শুরু থেকেই বাংলাদেশ আওয়ামীল লীগের সুনাম ক্ষুণœ করার জন্য একটি বিশেষ মহল চেষ্টা করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় অন্য প্রার্থীগণও এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আওয়ামী লীগের সুনাম নষ্ট করছে। এ অবস্থায় পৌরবাসীকে নিজ নিজ অবস্থানে থেকে আগামী ৩০ নভেম্বর মঙ্গলবারের পৌর নির্বাচনকে একটি উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত করার জন্য একেকজন মুজিব আর্দশের সৈনিক হিসেবে ভূমিকা নেয়ার আহবান জানাচ্ছি। সেই সাথে নির্বাচন কমিশন, প্রসাশন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, সাংবাদিকসহ সকল শ্রেণি-পেশার জনগণকে সাথে নিয়ে ৩০ নভেম্বরের পৌর নির্বাচনকে একটি অবাধ, সুষ্ঠ, গ্রহণযোগ্য ও প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচনে পরিণত করতে আমরা বদ্ধপরিকর।
উল্লেখ্য, এর আগে মেয়র পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী সামিউল হক লিটন সংবাদ সম্মেলন করে তার নির্বাচনী অফিস ভাঙচুরসহ বিভিন্ন অভিযোগ উত্থান করেন।
আগামী ৩০ নভেম্বর চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র, সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে সাধারণ নির্বাচন অনষ্ঠান হবে।