আগের দিনের রেকর্ড ভেঙে সাড়ে ৭ হাজার ছাড়াল শনাক্ত

11

দেশে আগের দিনের রেকর্ড ভেঙে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত সাড়ে ৭ হাজার ছাড়িয়েছে। এই সময়ে শনাক্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৬২৬ জন, যা একদিনে এ যাবৎকালের সর্বোচ্চ। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যুবরণ করেছেন আরো ৬৩ জন। বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জাননো হয়।
এর আগে গত মঙ্গলবার দেশে ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড হয়। ওই দিন ৬৬ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয়। ওই দিনের আগ পর্যন্ত গত বছরের ৩০ জুন সর্বোচ্চ মৃত্যু ছিল ৬৪ জন।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, গত এক বছরের সব রেকর্ড ভেঙে গত ২৯ মার্চ করোনা শনাক্ত হন ৫ হাজার ১৮১ জন। সেই রেকর্ড ভেঙে আবার ৩১ মার্চ শনাক্ত হন ৫ হাজার ৩৮৫ জন। ১ এপ্রিল শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়ায় ৬ হাজার ৪৬৯ জন। ২ এপ্রিল আবারো আগের রেকর্ড ভেঙে শনাক্ত দাঁড়ায় ৬ হাজার ৮৩০ জন। এরপর ৪ এপ্রিল একদিনে শনাক্ত দাঁড়ায় ৭ হাজার ৮৭ জন। গত মঙ্গলবার আগের রেকর্ড ভেঙে শনাক্ত হয় ৭ হাজার ২১৩ জন। এরপর বুধবার দেশের ইতিহাসে আবার সর্বোচ্চ শনাক্ত হয়।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশে এখন পর্যন্ত মোট শনাক্ত ৬ লাখ ৫৯ হাজার ২৭৮ জন। মোট মৃত্যু ৯ হাজার ৪৪৭ জন। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ২৫৬ জন। এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ ৫ লাখ ৬১ হাজার ৬৩৯ জন।
এতে আরো জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয় ৩৪ হাজার ৬৬৮টি, অ্যান্টিজেন টেস্টসহ নমুনা পরীক্ষা করা হয় ৩৪ হাজার ৬৩০টি। এখন পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৪৮ লাখ ৮২ হাজার ৫৬৫টি।
গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২২ দশমিক শূন্য ২ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৫ দশমিক ১৯ শতাংশ এবং মৃত্যু হার ১ দশমিক ৪৩ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ৩৯ জন পুরুষ এবং নারী ২৪ জন। বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬০ বছরের ওপরে ৪০ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১২ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৫ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ২ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ৩ জন এবং ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ১ জন মারা গেছেন।
বিভাগ বিশ্লেষণে দেখা যায়, মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে মারা গেছেন ৪১ জন, চট্টগ্রামে ১০ জন, রাজশাহীতে ৪ জন, খুলনায় ২ জন, বরিশালে ১ জন, ময়মনসিংহে ২ জন এবং সিলেটে ৩ জন। ২৪ ঘণ্টায় ৬৩ জনই হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন।