অপুর ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে জয় পেল ঢাকা

5

জয়ের পাল্লা কিছুটা নুইয়েই ছিল ঢাকার দিকে। শেষ দিনে দুর্দান্ত বোলিং করে সেটাই সত্যি করলেন নাজমুল ইসলাম অপু। বাঁহাতি এই স্পিনারের ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে ¯্রফে উড়ে গেল রংপুর। বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে জাতীয় লিগের প্রথম স্তরের ম্যাচে রংপুরের বিপক্ষে ৮০ রানের জয় তুলে নিয়েছে ঢাকা। ২৬৪ রানের জয়ের লক্ষ্যে শেষ দিনে রংপুরের প্রয়োজন ছিল ২২৯, হাতে ছিল আট উইকেট। শেষ পর্যন্ত তারা গুটিয়ে যায় ১৮৩ রানে। প্রতিপক্ষকে গুঁড়িয়ে দিতে অপু এদিন একাই নেন ৫ উইকেট। আগের দিনের এক উইকেটসহ ৬৪ রানে ইনিংসে তার প্রাপ্তি ৬টি। তার আগের সেরা ছিল ২১ রানে ৫ উইকেট। প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে ম্যাচে এই প্রথম ১০ উইকেট পেলেন তিনি। প্রথম ইনিংসে নিয়েছিলেন ৪ উইকেট। দিনের শুরুটা ভালো হয়নি রংপুরের। ২ উইকেটে ৩৫ রান নিয়ে খেলতে নামা দলটি দ্রুত হারিয়ে ফেলে আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মাহমুদুল হাসান ও সোহরাওয়ার্দি শুভকে। বাঁহাতি স্পিনে দুই জনকেই ফেরান অপু। নাইম ইসলাম এক প্রান্ত আগলে রাখেন। কিন্তু প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি করা নাসির হোসেন এবার করতে পারেননি কিছুই। সাইফ হাসানের বলে কট বিহাইন্ড হন তিনি ১৬ রান করে। আরিফুল হকও পারেননি দলের হাল ধরতে। অধিনায়ক আকবর আলি ও নাইম কিছুক্ষণ প্রতিরোধ গড়েন। কিন্তু তাদের জুটিও খুব একটা বড় হয়নি। আকবরকে (২৮) এলবিডব্লিউ করে ৪৬ রানের জুটি ভাঙেন অপু। পূর্ণ করে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে নিজের পঞ্চম ৫ উইকেট। থিতু হয়ে ফেরেন আলাউদ্দিন বাবুও। সতীর্থদের আসা যাওয়ার মাঝে ১৬৫ বলে ফিফটি স্পর্শ করেন নাইম। এরপর আর ইনিংস বড় করতে পারেননি তিনি। তাইবুর পারভেজের বলে ক্যাচ দেন দ্বিতীয় স্লিপে। তার ৬১ রানের ইনিংসে চারটি ৪। অপুকে ছক্কায় ওড়ানোর পরের বলেই তৃতীয় স্লিপে ধরা পড়েন রিশাদ হোসেন। শেষ হয় রংপুরের ইনিংস।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
ঢাকা ১ম ইনিংস: ৩৬৫
রংপুর ১ম ইনিংস: ২৩০
ঢাকা ২য় ইনিংস: ১২৮
রংপুর ২য় ইনিংস: (লক্ষ্য ২৬৪) (আগের দিন ৩৫/২) ৮৬.২ ওভারে ১৮৩ (সোহরাওয়ার্দী ২০, মাহমুদুল ১৫, নাইম ৬১, নাসির ১৬, আরিফুল ২, আকবর ২৮, বাবু ৮, রিশাদ ১০, মুকিদুল ০*; সুমন ৬-২-১২-০, নাজমুল ৩৯.২-৮-৬৪-৬, আরাফাত জুনিয়র ৬-০-৬৪-১, শুভাগত ১৪-১-৩৩-০, সাইফ ৭-১-১৪-১, শাকিল ১-০-৯-০, তাইবুর ১৩-৪-২১-২)।
ফল: ঢাকা ৮০ রানে জয়ী।
ম্যান অব দা ম্যাচ: নাজমুল ইসলাম অপু।