জিনজিয়াং-এর পরিস্থিতি নিয়ে জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধানের উদ্বেগ

6

চীনের মানবাধিকার রেকর্ড নিয়ে তুমুল সমালোচনা ও গভীর উদ্বেগ জানিয়েছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান মিশেল ব্যাশেলেট। তিনি অভিযোগ করেছেন, জাতীয় নিরাপত্তা ও কোভিড-১৯ প্রতিরোধী পদক্ষেপের নামে চীন মৌলিক নাগরিক অধিকার ও রাজনৈতিক স্বাধীনতার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করছে। জিনজিয়াং পরিস্থিতির প্রসঙ্গ টেনে শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) মানবাধিকার কাউন্সিলে এমন উদ্বেগ জানান ব্যাশেলেট। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। জিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর মুসলিমদের সঙ্গে চীন প্রশাসনের ব্যবহার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই সরব বহু অধিকার রক্ষা সংস্থা। এ ইস্যুতে জাতিসংঘেও দফায় দফায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের তোপের মুখে পড়েছে বেইজিং।

মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো বলছে, চীনা সরকার উইঘুরদের ধর্মীয় ও অন্য স্বাধীনতা ক্রমেই হরণ করেছে। গণ-নজরদারি, বন্দিত্ব, মগজ ধোলাই এবং জোরপূর্বক বন্ধ্যাকরণ পর্যন্ত করানোর একটি ব্যবস্থা গড়ে তুলেছে তারা। জিনজিয়াং প্রদেশে সংখ্যালঘু মুসলমানদের উপর চীন যে নিপীড়ন চালাচ্ছে তার সমালোচনা করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাশেলেট। ব্যাশেলেট বলেন, ওই এলাকায় জোরপূর্বক আটক রাখা, খারাপ আচরণ করা, যৌন নিপীড়ন ও জোরপূর্বক শ্রম নিয়ে যেসব প্রতিবেদন হয়েছে, তার আলোকে এ নিয়ে স্বাধীন মূল্যায়ন প্রয়োজন।তিনি আশা প্রকাশ করেছেন, জিনজিয়াং ভ্রমণে যেতে চীনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে একটি চুক্তিতে পৌছাতে পারবেন।
হংকংয়ের রাজনৈতিক স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপেরও প্রতিবাদ করেছেন তিনি।