বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী : চাঁপাইনবাবগঞ্জে সাবেক জেলা নেতৃবৃন্দ্রের পুনর্মিলনী

35

দেশের ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র লীগের ৭৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী দেশব্যাপী উদযাপিত হয়েছে। দেশের সীমান্তবর্তী জেলা আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হয়েছে। তবে এবার ছিল ব্যক্রিমী উদ্যোগ। এবার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে পুনর্মিলনীর আয়োজন করা হয়। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্র লীগ এই উদ্যোগ গ্রহণ করে।
সোমাবর সকাল সাড়ে ৯টায় জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শুরু হয়। পরে আনন্দ শোভাযাত্রা সহ শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সরকারি কলেজ চত্বরে শহীদ মিনারে শেষ হয়। জেলা ছাত্র লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নাহিদ শিকদার ও সাধারণ সম্পাদক ডা. সাইফ জামান আনন্দর নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু মঞ্চে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। পরে নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ চত্বরে শহীদ মিনারে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা ছাত্র লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নাহিদ শিকদারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ড. সাইফ জামান আনন্দর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন, জেলা ছাত্র লীগের সাবেক সভাপতি শেখ হাফিজুল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বেনু, সাবেক সভাপতি আব্দুল হাই, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডবোকেট মিজানুর রহমান, সাবেক সভাপতি গোলাম শাহনেওয়াজ অপু, সাধারণ সম্পাদক শহীদুল হুদা অলক, সাবেক সভাপতি আল মামুন, সাবেক সভাপতি ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান তোতা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) মো. গোলাপ হোসেন, সাবেক সভাপতি এইচ.এম.ফায়জার রহমান কনক, সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান আরমান, সাবেক সভাপতি সাকিউল ইসলাম সাকিল, সাবেক সভাপতি ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক আরিফুর রেজা ইমন। বক্তারা বলেন, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের নিজ হাতে পড়া শিক্ষা-শান্তি-প্রগতি পতাকাবাহী সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। এই সংগঠন দেশের প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। আগামী দিনেও জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা দেশরতœ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের যে কোনো প্রয়োজনে পাশে থাকার দৃঢ়প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তারা।
সাবেক এইসব ছাত্র নেতাদেরকে সম্মাননা স্মারক তুলে দেয়া হয়। পরে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটেন উপস্থিত নেতৃবৃন্দ।