নারীনেত্রী আয়শা খানম আর নেই

11

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্ট নারীনেত্রী আয়শা খানম ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। শনিবার ভোরে রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।
মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু এক বিবৃতিতে আয়েশা খানমের মৃত্যুর খবর গণমাধ্যমকে জানান। তিনি জানান, আয়শা খানম দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। তিনি ফুসফুসের ক্যানসারে ভুগছিলেন। শুক্রবার রাতে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় এবং শনিবার ভোরে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। নেত্রকোনায় নিজ গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে মরহুমের স্বামী প্রকৌশলী মরতুজা হাসানের কবরের পাশে তাকে সমাহিত করা হবে বলেও জানান মালেকা বানু।
বীর মুক্তিযোদ্ধা ও নারীনেত্রী আয়শা খানুমের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ আরো অনেকেই শোক প্রকাশ করেছেন।
পৃথক শোক বার্তায় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ আয়শা খানমের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, ‘নারী অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে আয়েশা খানম ছিলেন একজন সাহসী যোদ্ধা। দেশে নারীর ক্ষমতায়নে তিনি অত্যন্ত প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখেছেন।’ রাষ্ট্রপতি মরহুমা আয়শা খানমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার শোকবার্তায় বলেন, এই নারী নেত্রীর মৃত্যুতে দেশের নারী সমাজ একজন অকৃত্রিম বন্ধু ও সাহসী সহযোদ্ধাকে হারাল। প্রধানমন্ত্রী মরহুমার আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
আয়শা খানমের মরদেহ শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য রাজধানীর সেগুনবাগিচাস্থ বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেয়া হয়। সকাল সাড়ে ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত মরদেহ সেখানে রাখা হয়। এ সময় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটি, ঢাকা মহানগর কমিটি, সংগঠনের নারায়ণগঞ্জ শাখা ও বেলাবো শাখা শ্রদ্ধা নিবেদন করে। পাশাপাশি সংগঠনের কর্মকর্তাবৃন্দ শ্রদ্ধা জানান। এছাড়া রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ প্রয়াত নেত্রীকে শ্রদ্ধা জানান। এরপর নেত্রকোনায় জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক করবরস্থানে সমাহিত করা হয়।
আয়শা খানম বাষট্টির ছাত্র আন্দোলন, উনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান, মহান মুক্তিযুদ্ধসহ সব প্রগতিশীল আন্দোলনের সক্রিয় সংগঠক ছিলেন। তিনি ছাত্রজীবন শেষে বঞ্চিত অধিকারহীন নারীদের অধিকার আদায়ে আমৃত্যু নিয়োজিত ছিলেন। তার মৃত্যুতে বাংলাদেশের নারী আন্দোলন এক অকৃত্রিম অভিভাবককে হারাল।
নেত্রকোনার গাবড়াগাতি গ্রামে ১৯৪৭ সালের ১৮ অক্টোবর আয়শা খানমের জন্ম। তার বাবার নাম গোলাম আলী খান এবং মা জামাতুন্নেসা খানম। তিনি ১৯৭১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি ছিলেন। তিনি দীর্ঘদিন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব পালনকালে নারীর অধিকার আদায়ে বিশেষ ভূমিকা রাখেন।