২০২০ সালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসনের অর্জন

26

১০ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস থেকে শুরু করে জন্মদিবস ১৭ মার্চ পর্যন্ত টানা ৬৬ দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে অস্থায়ী মঞ্চে নানান আয়োজনের মধ্যদিয়ে উদ্যাপন করা হয়। এরপর করোনা পরিস্থিতিতে জনসমাগম বন্ধ করা হলে বাইরের আয়োজনও বন্ধ রাখা হয়।
করোনাকালীন পৌরসভাগুলোয় বিশেষ ওএমএস খাদ্য সুষ্ঠুভাবে বিতরণ করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের মাধ্যমে প্রয়োজনে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্যসামগ্রী ও নগদ টাকা বিতরণ করা হয়। এ-সময় ২ লাখ ২৪ হাজার ৮০০ পরিবারের মাঝে ২ হাজার ২৪৮ মেট্রিক টন চাল, ৩৯ হাজার ৯০৬ পরিবারে ১ কোটি ৫৯ লাখ ৫ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়। সাবেক জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে সুষ্ঠুভাবে গরিব দুস্থ মানুষের মাঝে এই চাল ও টাকা বিতরণ করা হয়। এছাড়া শিশু খাদ্যও বিতরণ করা হয়। সদর উপজেলা প্রশাসনের সাবেক উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলমগীর হোসেন ঈদের দিনেও করোনা আক্রান্তদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেন।
জেলা প্রশাসনের তিন বছর মেয়াদি (২০২০-২২) ‘মাদক মুক্তির কর্মপরিকল্পনা’ মডেল হিসেবে গ্রহণ করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মাদকের ভয়াবহ আগ্রাসন থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলাকে মুক্ত করার লক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সাবেক জেলা প্রশাসক এজেডএম নূরুল হকের নেতৃত্বে এই কর্মপরিকল্পনাটি গ্রহণ করা হয়। এই পরিকল্পনার খসড়া স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হলে সারাদেশের জন্য এটিকে মডেল হিসেবে গ্রহণ করা হয়। পরিকল্পনাটির আলোকে দেশের অন্যান্য জেলায় উদ্যোগ গ্রহণের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের মাদক-২ শাখা থেকে দেশের সকল মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরকে পত্র দেয়া হয়।
এছাড়াও রয়েছে বাল্যবিয়ে রোধ ও ভিক্ষুক পুনর্বাসনে কর্মপরিকল্পনা। বছরের শুরুর দিকে বালবিয়ে রোধে জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য জেলাজুড়ে ১ লাখ লোকের সমাগম করা হয়। এরই মধ্যে জেলার ১০০ নারী ভিক্ষুককে পুনর্বাসিত করা হয়েছে। এ বছরেই সাবেক জেলা প্রশাসক প্রাথমিক শিক্ষায় বিশেষ অবদানের জন্য পুরস্কৃত হয়েছেন।
এছাড়া মহান মুক্তিযুদ্ধের বীরদের স্বাক্ষর সংবলিত গ্রন্থ ‘অগ্নিস্বাক্ষর’ স্মরণে শ্রদ্ধায় যাঁরা, জেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহের তথ্য কণিকা ‘আমার বিদ্যালয়’সহ বেশ কয়েকটি প্রকাশনা বের করেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসন। এছাড়াও জেলার পর্যটন খাত নিয়ে প্রকাশিত হয়েছে পর্যটন গাইড। এই গাইডে রয়েছে জেলার দর্শনীয় স্থানসহ পর্যটন সংশ্লিষ্ট সব কিছু। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর এবছরই চালু হয়েছে সোনামসজিদ পর্যটন মোটেল। অর্থনৈতিক জোনের জটিলতা কাটিয়ে নতুন করে পরিকল্পনা শুরু হয়েছে।