চাঁপাইনবাবগঞ্জে ‘জাতির পিতার সম্মান-রাখব মোরা অম্লান’ শীর্ষক আলোচনা সভা

54

‘জাতির পিতার সম্মান-রাখব মোরা অম্লান’- এই স্লোগানকে সামনে রেখে চাঁপইনবাবগঞ্জ জেলা ও উপজেলাসহ বিভিন্ন স্থানে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে এই সভার আয়োজন করা হয়। সভায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের সম্মান অম্লান রাখতে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পর্যায়ের সভায় বিচার বিভাগের কমকর্তা-কর্মচারীরাও যোগ দেন। প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদ :
নিজস্ব প্রতিবেদক :  শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা পর্যায়ের সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. মঞ্জুরুল হাফিজ। সভায় বক্তৃতা করেন- জেলা ও দায়রা জজ মোহা. আদীব আলী, চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কুমার শিপন মোদক, পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রকিব, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. শংকর কুমার কু-ু, সিভিল সার্জন ডা. জাহিদ নজরুল চৌধুরী, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম, জেলা মৎস্য অফিসার ড. আমিমুল এহসান, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোস্তাফিজুর রহমান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মোজাহার আলী প্রামানিক, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মহসীন, সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী সানজিদা আফরিন ঝিনুক, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মেহেদি হাসান, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী অমিত কুমার সরকার, জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক উম্মে কুলসুম, জেলা মহিলা বির্ষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক সাহিদা আখতার, জেলা পরিসংখ্যান ব্যুরোর উপপরিচালক উম্মে কুলসুম, জেলা ইসমলামিক ফাউন্ডেশনের উপপরিচালক আবুল কালাম, জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আনিসুর রহমান খানসহ অন্য দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।
বক্তারা বলেন- জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে এ দেশ স্বাধীন হয়েছে। জাতি যখন স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে, যখন বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপন করছে, যখন পদ্মা সেতুর জন্য আনন্দ উৎসব হচ্ছে- ঠিক তখন সেদিন যারা স্বাধীনতাকে মেনে নিতে পারেনি তাদেরই উত্তরসূরিরা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর করেছে। তাদেরকে প্রতিহত করতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা প্রয়োজেন মাঠে নামবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তারা বলেন, কোনোভাবেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অসম্মান হতে দেয়া হবে না। মূর্তি আর ভাস্কর্য এক নয়। মূর্তি তৈরি করে পূজা করা হয় এবং ভাস্কর্য তৈরি করে স্মৃতি ধরে রাখা হয়। কাজেই যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য তৈরির বিরোধিতা করছে, তাদেরকে প্রতিহত করতে হবে।
সদর উপজেলা প্রশাসন : চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পর্যায়ে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে উপজেলা প্রশাসন একই স্লোগানকে সামনে রেখে অনুরূপ সভার আয়োজন করে। সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাজমুল ইসলাম সরকার।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ চেম্বার : অন্যদিকে বেলা ১১টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চের সামনে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙে ফেলা ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে জেলা চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রি মানববন্ধন করে। মানববন্ধনে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন- চেম্বারের সিনিয়র সভাপতি আব্দুল হান্নান হান্নু, পরিচালক আল কোরাইশী মিল্লু ও শহিদ হোসেন, বাহরাম আলি, হায়দার আলী।
শিবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে উপজেলা পর্যায়ে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে উপজেলা প্রশাসন একই স্লোগানকে সামনে রেখে এক সভার আয়োজন করে। সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাকিব-আল-রাব্বি।
নাচোল : চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাংচুরের ঘটনায় প্রতিবাদ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।  শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় পরিষদ মিলনায়তনে সহকারী কমিশনার ভূমি খাদিজা বেগমের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন- উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন- নাচোল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হাফিজুর রহমান, নাচোল মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ ওবায়দুর রহমান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ, খুরশেদ মোল্লা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার মতিউর রহমান, মুন্সী হযরত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শাহীন বানু।
ভোলাহাট : ‘জাতির পিতার সম্মান-রাখবো মোরা অম্লান’- এ স্লোগানে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে জেলার ভোলাহাটে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।  শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলা প্রশাসন এই সভার আয়োজন করে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মশিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রাব্বুল হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান গরিবুল্লাহ দবির, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহানাজ খাতুনসহ আরো অনেকে।
গোমস্তাপুর প্রতিনিধি : চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে ‘জাতির পিতার সম্মান, রাখবো মোরা অম্লান’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে উপজেলার সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে গোমস্তাপুর উপজেলা প্রসাশনের আয়োজনে উপজেলা অডিটোরিয়ামে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন ছিলেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহরিয়ার নজির, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহফুজা খাতুন, রহনপুর তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আব্দুল মালেক, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাসুদ পারভেজ, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা হাবিবুর রহমানসহ উপজেলা প্রাথমিক, মাধ্যমিক এবং মাদ্রাসা সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকগণ। সভায় বক্তারা বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতির জন্য জীবন দিয়ে গেছেন। তাকে আমাদের স্মরণীয় করে রাখতে হবে। তার সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণের যে প্রস্তুতি নিয়েছেন তা আমাদের বাস্তবায়ন করতে হবে।
নিয়ামতপুর প্রতিনিধি : নওগাঁর নিয়ামতপুরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙার বিরুদ্ধে সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।  শনিবার সকাল ১০টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারীয়া পেরেরার সভাপতিত্বে ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী বজলুর রশীদের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন- সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিলুফা সরকার, ওসি (তদন্ত) হুমায়ন কবির, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার সেলিম উদ্দিন, উপজেলা প্রকৌশলী নূর-ই-আলম সিদ্দিকী, সহকারী প্রকৌশলী (বিএমডিএ) মতিউর রহমান, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আরিফুজ্জামান, উপজেলা মহিলা বিষয়ক অফিসার নিলুফার ইয়াসমিন, উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ইনস্ট্রাক্টর তমা চৌধুরী, উপজেলা আনসার ও ভিডিপি অফিসার মো. জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. তোফাজ্জল হোসেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার তরিকুল ইসলাম, নিয়ামতপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন তোতা, টিকরামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেনসহ বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকবৃন্দ।