দুস্থ শ্রমিকরা মাসে ৩ হাজার টাকা করে সহায়তা পাবেন

3

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) অর্থায়নে ‘রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক, চামড়াজাত পণ্য ও পাদুকাশিল্পের কর্মহীন হয়ে পড়া ও দুস্থ শ্রমিকদের সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রম’-এর আওতায় মাসে ৩ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে। ইইউ’র সহযোগিতায় বাস্তবায়নাধীন ‘সাপোর্ট টু ন্যাশনাল সোশ্যাল সিকিউরিটি স্ট্র্যাটিজি রিফর্ম ইন বাংলাদেশ’ প্রোগ্রামের অর্থায়ন চুক্তির অ্যাডেন্ডাম নাম্বার-১ গত ২ ডিসেম্বর স্বাক্ষরিত হয়েছে।
অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের পক্ষে সচিব বেগম ফাতিমা ইয়াসমিন ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষে উন্নয়ন সমন্বয়ক (ভারপ্রাপ্ত) মিস জিয়েন লুইস ভিলে চুক্তিটি স্বাক্ষর করেন। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ঢাকার ওসমানি স্মৃতি মিলনায়তনে স্বাক্ষরিত চুক্তিটি ইইউ প্রতিনিধির কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়।
অর্থ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এই চুক্তির আওতায় করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ‘রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক, চামড়াজাত পণ্য ও পাদুকাশিল্পের কর্মহীন হয়ে পড়া ও দুস্থ শ্রমিকদের জন্য সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রম’ পরিচালনার জন্য বাংলাদেশ সরকারকে মোট ১১৩ মিলিয়ন ইউরো অনুদান দেয়া হবে, যার মধ্যে ইইউ প্রদান করবে ৯৩ মিলিয়ন ইউরো এবং ফেডারেল জার্মান সরকার প্রদান করবে অবশিষ্ট ২০ মিলিয়ন ইউরো। সরকার এরই মধ্যে নতুন এ সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমটির নীতিমালা জারি করেছে।
শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীনস্ত শ্রম অধিদপ্তর, চারটি শিল্প সংগঠনের সহায়তায় এ কার্যক্রমটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ কার্যক্রমের আওতায় উপকারভোগী দুস্থ শ্রমিকদের প্রত্যেককে মাসিক ৩ হাজার টাকা হারে সর্বোচ্চ তিন মাস আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে। অনুদানের অর্থ সরাসরি শ্রমিকদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট বা মোবাইল ব্যাংক অ্যাকাউন্টে প্রদান করা হবে। সব প্রস্তুতিমূলক কাজ শেষে চলতি ডিসেম্বর থেকেই অনুদান দেয়ার কাজ শুরু হবে।