দিনমজুরের মজুরি বাড়ল

19

দীর্ঘ চার বছর পর মজুরি বাড়ল সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে দৈনিক ভিত্তিতে কাজ করা দিনমজুর বা শ্রমিকদের। এ দফায় ঢাকা সিটি করপোরেশনসহ সব সিটি করপোরেশন ছাড়াও বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের দিনমজুরদের গড়ে মজুরি বাড়ানো হয়েছে ১০০ টাকা। মজুরির হার পুনর্নির্ধারণ করা অফিস আদেশ বুধবার জারি করে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ। দৈনিকভিত্তিক পুনর্নির্ধারণকৃত এই শ্রমিক মজুরির হার আদেশ জারির তারিখ থেকে কার্যকর হবে। তবে এক্ষেত্রে বেশ কিছু শর্তও জুড়ে দিয়েছে অর্থ বিভাগ। শর্তগুলো হলোÑ শ্রমিকের সংখ্যা যথাযথ কর্তৃপক্ষ থেকে অনুমোদিত হতে হবে। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, বিভাগ, অধিদফতর, পরিদফতর, দফতর ও সংস্থার নিজস্ব বাজেট বরাদ্দ থেকে এ ব্যয় নির্বাহ করতে হবে। এ খাতে অতিরিক্ত বরাদ্দ দাবি করা যাবে না। তা ছাড়া উল্লিখিত দৈনিক মজুরির হারে মাসিক ভিত্তিতে শ্রমিক নিয়োগ করা যাবে না।

২০১৬ সালের ২৪ মে সর্বশেষ মজুরি পুনর্নির্ধারণ করেছিল অর্থ বিভাগ। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগের চেয়ে প্রতিটি ক্ষেত্রে ১০০ টাকা করে মজুরি বাড়ানো হয়েছে। অন্যদিকে অর্থনীতিবিদ ও শ্রমিক নেতারা এই মজুরি বৃদ্ধিকে স্বাগত জানালেও দীর্ঘ চার বছরে মাত্র ১০০ টাকা মজুরি বৃদ্ধি করা যথার্থ হয়নি বলে মনে করছেন। বর্তমানে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির বাজারে ১০০ টাকা মজুরি বৃদ্ধি শ্রমিকদের তেমন কোনো কাজে আসবে না। অন্তত ২০০ থেকে ২৫০ টাকা মজুরি বৃদ্ধি করা দরকার ছিল। আশা করব সরকার এ বিষয়ে পুনর্বিবেচনা করবে।

শ্রমিক নেতা ও বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজের (বিলস) চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান এ বিষয়ে বলেন, মজুরি কমিশনের নিয়ম হচ্ছে প্রতি পাঁচ বছর পর পর মজুরি সমন্বয় করা বা বৃদ্ধি করা। কিন্তু বর্তমান সরকার শ্রমিকদের বিষয়ে সচেতন। এ জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা দিয়েছেন পাঁচ বছর পর্যন্ত অপেক্ষা না করে তার আগেই দুই বছর বা তিন বছর পর মজুরি বৃদ্ধি করতে হবে। তার আলোকেই সরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত দিনমজুরদের মজুরি বাড়ানো হলো। আমরা এই মজুরি বৃদ্ধিকে স্বাগত জানাই। তবে মাত্র ১০০ টাকা বাড়িয়ে ৫০০ টাকার স্থলে ৬০০ টাকা মজুরি নির্ধারণ পর্যাপ্ত নয়। এ বিষয়ে আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি এবং তার হস্তক্ষেপ কামনা করছি। শ্রমিকরা যাতে খেয়ে-পরে বাঁচতে পারে এ রকম মজুরি নির্ধারণ করা হোক।

অর্থ বিভাগের নতুন আদেশ অনুযায়ী ঢাকা ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন এলাকায় নিয়মিত দক্ষ শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি ধরা হয়েছ ৬০০ টাকা। আগে যা ছিল ৫০০ টাকা। অনিয়মিত বা অদক্ষ শ্রমিকদের মজুরি নির্ধারণ করা হয়েছে ৫৭৫ টাকা, আগে যা ছিল ৪৭৫ টাকা।

এ ছাড়া বিভাগীয় শহর এবং অন্যান্য সিটি করপোরেশন এলাকায় নিয়মিত দক্ষ শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি নির্ধারণ করা হয়েছে ৬০০ টাকা, আগে যা ছিল ৫০০ টাকা। অনিয়মিত অদক্ষ শ্রমিকদের মজুরি নির্ধারণ করা হয়েছে ৫৫০ টাকা, আগে যা ছিল ৪৫০ টাকা।

জেলা ও উপজেলা এলাকায় নিয়মিত দক্ষ শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি ধরা হয়েছ ৫৫০ টাকা, আগে যা ছিল ৪৫০ টাকা। অনিয়মিত অদক্ষ শ্রমিকদের মজুরি নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০০ টাকা, আগে ছিল ৪০০ টাকা।

অর্থ বিভাগ থেকে কেস টু কেস ভিত্তিতে ইতো:পূর্বে যেসব দফতরের বিপরীতে দৈনিকভিত্তিক শ্রমিক মজুরির হার নির্ধারণ করা হয়েছিল, এ পুনর্নির্ধারিত হার সেসব দফতরের জন্যও প্রযোজ্য।

এ বিষয়ে কোনো অনিয়ম পরিলক্ষিত হলে বিল পরিশোধকারী কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে। এ ব্যয়ের ক্ষেত্রে যাবতীয় আর্থিক বিধিবিধান যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে।