পরিচ্ছন্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জ গড়াই হবে আমার প্রধান কাজ : নবাগত জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ

137

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নতুন জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. মঞ্জুরুল হাফিজ বলেছেন, “‘পরিচ্ছন্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জ’ স্লোগান নিয়ে আমি এগিয়ে যেতে চাই। সবার সহযোগিতায় একটি পরিচ্ছন্ন জেলা হিসেবে চাঁপাইনবাবগঞ্জকে গড়ে তোলাই হবে আমার প্রথম অঙ্গীকার।” জেলা প্রশাসক বলেন- “ডেঙ্গু প্রতিরোধে শহর এবং গ্রাম পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা খুবই জরুরি। এজন্য পৌর মেয়র ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের সঙ্গে বসব। জনসাধারণের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় দ্রুততার সঙ্গে ময়লা-আবর্জনা অপসারণ করার ব্যবস্থা গ্রহণ করব।
আজ বুধবার দায়িত্বভার গ্রহণের পর তাঁর কক্ষে একান্ত আলাপচারিতায় তিনি গৌড় বাংলাকে এসব কথা বলেন।
জেলা প্রশাসক বলেন- “চাঁপাইনবাবগঞ্জের উন্নয়নের লক্ষে আমি প্রতিটি গ্রামে যাব, সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলব এবং সমস্যা ও সম্ভাবনা চিহ্নিত করে ব্যবস্থা গ্রহণে উদ্যোগ নিব। এটাই হবে আমার কর্মজীবনের সবচেয়ে বড় সার্থকতা। সাংবাদিকরাও সঙ্গে যাবেন। তারা গ্রামগুলোর বাস্তব চিত্র তুলে ধরে সংবাদ পরিবেশন করবেন।” তিনি বলেন- “বর্তমান করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলাতেও অধিক গুরুত্ব দেয়া হবে।”
জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ বলেন- “প্রাথমিক শিক্ষাকে এগিয়ে নিতে আমি এরই মধ্যে উদ্যোগ নিয়েছি। আমি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে বলেছি, আগামী সাতদিনের মধ্যে জেলার প্রত্যেক শিক্ষক যেন শিক্ষার্থীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের খোঁজখবর নেন। চলমান করোনা পরিস্থিতিতে তারা কেমন আছে, বাড়িতে বসে পড়াশোনা করছে কী না, তা শিক্ষকগণ জানবেন।”
মঞ্জুরুল হাফিজ বলেন- “দেশকে এগিয়ে নিতে যুবসমাজ হচ্ছে বিরাট শক্তি। তাই সুস্থ যুবসমাজ গঠনের লক্ষে খেলাধুলার প্রতি অধিক গুরুত্ব দেয়া হবে।” যুবসমাজকে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করে তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর জনশক্তি গড়ে তোলার কথাও ব্যক্ত করেন নতুন এ জেলা প্রশাসক।
জেলা প্রশাসক বলেন- “সব কিছুর আগে আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে মতবিনিময় করে তাদের সুখ-দুঃখের কথা শুনব। এরপর বিকেল ৩টায় বসবেন সাংবাদিকদের সঙ্গে। এছাড়াও পর্যায়ক্রমে জেলার সুশীল সমাজ ও সরকারি দপ্তরগুলোর প্রধানদের সঙ্গে মতবিনিময় করে জেলাকে এগিয়ে নেয়ার জন্য পরিকল্পনা গ্রহণ করব।”
মো. মঞ্জুরুল হাফিজ চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে যোগদান করে আজ বুধবার প্রথম কর্মদিবসে ব্যস্ত সময় পার করেছেন। এদিন সকালে তিনি বিদায়ী জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হকের কাছ থেকে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। এরপরই জেলা প্রশাসনের কর্মচারীদের সঙ্গে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে মতবিনিময় করেন। এ-সময় কর্মচারীরা নবাগত জেলা প্রশাসককে ফুল দিয়ে বরণ করেন। এরপর তিনি জেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা, সকল উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।
মো. মঞ্জুরুল হাফিজ ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার দুধসর গ্রামে ১৯৭২ সালের ৬ অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেন। তিনি শৈলকুপার ভাটই মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, ঝিনাইদহ কেসি কলেজ থেকে এইচএসসি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শনে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। ২২তম বিসিএসে উত্তীর্ণ হয়ে তিনি প্রশাসন ক্যাডারে যোগদান করেন। মঞ্জুরুল হাফিজ এর আগে জ্বালানি ও খণিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ে উপসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।
ব্যক্তিজীবনে তিনি দুই মেয়ে ও এক ছেলে সন্তানের জনক। জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজের সহধর্মিণী বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারের একজন সদস্য।