ফাঁদে পড়লেন বিরাট কোহলি

12

ভারতের সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটারদের এখন মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে স্বার্থজনিত সংঘাত বা কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্টের বিষয়টি। এবার তার ফাঁদে পড়েছেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) ইথিকস কর্মকর্তা ডিকে জৈনের কাছে এমন অভিযোগ করেছেন সঞ্জীব গুপ্ত। মধ্যপ্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের এই সদস্য শুধু কোহলিই নয়, আরও অনেক ক্রিকেটারের বিরুদ্ধেই একই অভিযোগ এনেছেন এর আগে। তার অভিযোগে ত্যক্ত-বিরক্ত হয়েছিলেন শচীন টেন্ডুলকার, ভিভিএস লক্ষ্ণণ ও রাহুল দ্রাবিড়রাও। সঞ্জীবের অভিযোগ, দুটি পদে একই সময় থেকে সংঘাতময় পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছেন কোহলি। একটি অধিনায়ক হিসেবে আরেকটি ডিরেক্টর হিসেবে তিনি দুটি সংস্থার সঙ্গে যুক্ত থেকে। যেখানে তার সহ পরিচালকেরা আবার একটি ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট ফার্মের সঙ্গে যুক্ত। যে ফার্মটির ক্লায়েন্ট ভারতের জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা! এতসব সম্পৃক্ততা আবার বোর্ডের নিয়ম বিরুদ্ধ। অভিযোগকারী সঞ্জীব গুপ্ত বলেছেন, ‘বিরাট কোহলি একই সময়ে দুটি পদ অধিকার করে আছেন। যেটি আবার বিসিসিআইয়ের ধারার ৩৮ (৪) ভঙ্গ করছে। তাই যে কোনও একটি পদ তার দ্রুতই ছেড়ে দেওয়া উচিত।’ এই অভিযোগের জবাবে বিসিসিআই ইথিকস কর্মকর্তা ও বিচারপতি জৈন বলেছেন, ‘আমি একটি অভিযোগ পেয়েছি। পরীক্ষা করে দেখবো এটি সত্য কিনা। যদি সত্যি হয় তাহলে কোহলির কাছ থেকে জবাব চাইবো।’