চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুই মাসের করোনা চিত্র : এ পর্যন্ত ২৫৮৪টি নমুনা সংগ্রহ, শনাক্ত ৮৬ ,সুস্থ ৫৩ জন

99

শনিবার ২০ জুন চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনা শনাক্ত হওয়া দুই মাস হলো। এখানে গত ২০ এপ্রিল প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এখন পর্যন্ত জেলাতে মোট করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৮৬ জন। এর মধ্যে করোনাকে জয় করেছেন ৫৩ জন। আর এখন পর্যন্ত জেলাতে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ২ হাজার ৫৮৪ জনের। এর মধ্যে নেগেটিভ ফল এসেছে ২ হাজার ৩৬১ জনের। ফলাফল পেন্ডিং আছে ১৩৭ জনের। সিভিল সার্জন কার্যালয়ের গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত তথ্যে এসব চিত্র উঠে এসেছে।
উল্লেখ্য, জেলাতে আক্রান্ত প্রথম ব্যক্তি ছিলেন নারায়ণগঞ্জ ফেরত। তার বাড়ি ছিল চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার চরমোহনপুর দক্ষিণপাড়া এলাকায়। তিনি গত ১৫ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ আসেন। বর্তমানে তিনি সুস্থ।
সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, এখন পর্যন্ত জেলাতে ২ হাজার ৫৮৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৮১৮, শিবগঞ্জে ৪৭৭, গোমস্তাপুরে ৪২৬, নাচোলে ৪৪৮ এবং ভোলাহাটের ৪১৫ জন। এ পর্যন্ত করোনার নেগেটিভ ফলাফল এসেছে ২ হাজার ৩৬১ জনের। এদের মধ্যে রয়েছে সদর উপজেলার ৭২৬, শিবগঞ্জে ৪৪৮, গোমস্তাপুরে ৩৮৪, নাচোলে ৪০৫ ও ভোলাহাটে ৩৯৮ জন। আর ফলাফল পেন্ডিং আছে ১৩৭ জনের। এ তালিকায় সদর উপজেলার ৬২, শিবগঞ্জে ১৫, গোমস্তাপুরে ২৩, নাচোলে ৩১ ও ভোলাহাটের ৬ জন রয়েছেন।
এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৮৬ জন। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৩০, শিবগঞ্জে ১৪, গোমস্তাপুরে ১৯, নাচোলে ১২ ও ভোলাহাটে ১১ জন রয়েছেন। আক্রান্ত ৮৬ জনের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৫৩ জন। সুস্থদের মধ্যে সদর উপজেলায় ২৪, শিবগঞ্জে ১০, গোমস্তাপুরে ৭, নাচোলে ৮ ও ভোলাহাটে ৪ জন।
সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে আরো জানা গেছে, জেলাতে এখন পর্যন্ত প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রয়েছেন ১৩ জন। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ১, শিবগঞ্জে ২, গোমস্তাপুরে ৫, নাচোলে ৪ ও ভোলাহাটে ১ জন। আর হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ৭৩ জন। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ২৯, শিবগঞ্জে ১২, গোমস্তাপুরে ১৪, নাচোলে ৮ ও ভোলাহাটে ১০ জন রয়েছেন। প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন সদর উপজেলায় ১, শিবগঞ্জে ২, গোমস্তাপুরে ৫, নাচোলে ৩ ও ভোলাহাটে ১ জনসহ মোট ১২ জন।
এখন পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ১১ হাজার ২২৯ জন। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৪০০২, শিবগঞ্জে ৪৭২৮, গোমস্তাপুরে ৫৯১, নাচোলে ১০১৭ এবং ভোলাহাটে ৮৯১ জন। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন সদর উপজেলায় ৬৩, শিবগঞ্জে ৭৯, গোমস্তাপুরে ১৭, নাচোলে ২১ ও ভোলাহাটে ৮ জনসহ মোট ১৮৮ জন। এখন পর্যন্ত হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড় পেয়েছেন ১১ হাজার ৩০২ জন। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৪০৫৮, শিবগঞ্জে ৪৭৪৪, গোমস্তাপুরে ৫৯৬, নাচোলে ১০১৩ এবং ভোলাহাটে ৮৯১ জন ছাড় পেয়েছেন।
জেলা সিভিল সার্জন কার্যলয় সূত্র আরো জানিয়েছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জে এখন পর্যন্ত সুরক্ষা সামগ্রী হিসেবে পিপিই পাওয়া গেছে ১৫৩৫২টি। এর মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে ৮ হাজার ৮৭৩টি। মজুদ আছে ৬ হাজার ৪৭৯টি।
সিভিল সার্জন ডা. জাহিদ নজরুল চৌধুরী এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।