সোনামসজিদ স্থলবন্দর: মঙ্গলবার থেকে চালুর কথা থাকলেও হচ্ছে বৃহস্পতিবার

17

নিজস্ব প্রতিবেদক : করোনা পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর গত মঙ্গলবার থেকে সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে পণ্য আমদানি শুরুর কথা শোনা গেলেও তা হয় নি। তবে সম্পূর্ণ স্বাস্থ্য বিধি মেনে বৃহস্পতিবার (৪ জুন) থেকে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম শুরু হবে জানিয়েছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক।
বন্দর সূত্র জানিয়েছেন, বৃহষ্পতিবার থেকে ভারতের মাহদীপুর স্থলবন্দর দিয়ে সোনামসজিদ বন্দরে ভারতীয় পণ্য পাঠানোর জন্য আবারো আগ্রহ দেখিয়েছে ভারতীয় ব্যাবসায়ীরা। বুধবার (৩ জুন) দুপুরে মোবাইল ফোনে এ আগ্রহ প্রকাশ করেন ভারতীয় সিএ্যান্ড এফ এজেন্ট এ্যাসোয়িশেনের সাধারণ সম্পাদক ভূপতি মন্ডল।
এ নিয়ে বুধবার (৩ জুন) ১১টার দিকে আকস্মিক স্থলবন্দর পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক এ জেড এম নুরুল হক। পরিদর্শনকালে স্থলবন্দর সি এ্যান্ড এফ এজেন্ট এ্যাসোসিয়েনের কনফারেন্স রুমে কাস্টমস এবং বন্দর পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান পানামা র্পোট লিংক লিমিটেডের কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। এ-সময় পুলিশ সুপার, সিভিল সার্জনসহ কাস্টমস, বিজিবি, পানামা পোর্ট লিংক লিমিটেডসহ বন্দর সংশ্লিষ্টদের উপস্থিতিতে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম চালানোর সময় কঠোরভাবে স্বাস্থ্য বিধি নিয়ে আলোচনা করা হয়।
ভারতীয় গাড়িচালকদের তাপমাত্রা পরীক্ষা এবং শ্রমিকদের মাক্স,হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও হাত ধৌয়ার ব্যবস্থাসহ স্বাস্থ্য বিধি মেনে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে সীমিত আকারে খাদ্যপণ্যসহ সকল প্রকার দ্রব্যাদি সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত আমদানি করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। নির্ধারিত ৫০ ভারতীয় ট্রাক চালক বন্দরে যাওয়া আসা করবে।
বৈঠকে বক্তব্য দেন, জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক, পুলিশ সুপার এ এইচ এম আবদুর রকিব, সিভিল সার্জন ডা. জাহিদ নজরুল চৌধুরি ও শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শিমুল আকতার।
এ ব্যাপারে বন্দর পরিচালনাকারী পানামা পোর্ট লিংক লিমিটেডের র্পোট ম্যানেজার মাঈনুল ইসলাম জানান, ভারতীয় সিএ্যান্ড এফ এজেন্ট সাধারণ সম্পাদক ভূপতি মন্ডলের মোবাইল ফোনে তাকে ভারত থেকে পণ্যবাহী ট্রাক পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সেসাথে বৈঠকের সকল সিদ্ধান্ত মেনে বন্দর পরিচালনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।
প্রসঙ্গত: করোনা পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘ ২ মাস ৭ দিন বন্ধ থাকার পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে গত মঙ্গলবার থেকে দেশের দ্বিতীয় বৃহৎ এই বন্দরটি চালু হবার কথা ছিল।