তিন বছর নিষিদ্ধ হলেন উমর আকমল

6

ম্যাচ ফিক্সিংএর প্রস্তাব গোপন করার দায়ে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে তিন বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন পাকিস্তানের ডান-হাতি ব্যাটসম্যান উমর আকমল। সোমবার আকমলকে নিষিদ্ধ করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের(পিসিবি) ডিসিপ্লিনারি কমিটি। দীর্ঘ তদন্ত শেষে তাকে এ শাস্তি দেয়া হয়। পাকিস্তান সুপার লিগ (পিএসএল) শুরুর আগে ম্যাচ ফিক্সিংএর প্রস্তাব পেয়েছিলেন ২৯ বছর বয়সী আকমল। কিন্তু ম্যাচ ফিক্সিংএর ব্যাপারে বোর্ড ও পিসিবির দূর্নীতি বিরোধী কমিটিকে জানাননি তিনি। বিষয়টি ফাঁস হওয়ার পর তার বিপক্ষে তদন্তে নামে পিসিবির ডিসিপ্লিনারি কমিটি।
তদন্তে আকমল পিসিবির ডিসিপ্লিনারি প্যানেল ও অ্যান্টি-করাপশন ট্রাইবুনালে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে ব্যর্থ হন। ফলে পিসিবির ডিসিপ্লিনারি কমিটি প্যানেলের চেয়ারম্যান ফজল-ই-মিরান চৌহান সব ধরনের ক্রিকেট থেকে আকমলকে তিন বছরের নিষেধাজ্ঞা দেন। পিসিবির অফিসিয়াল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার থেকে এক টুইট বার্তায় আকমলের নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। টুইটারে পিসিবি লিখে, ‘ডিসিপ্লিনারি কমিটির চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি ফজল-ই-মিরান চৌহান আকমলকে তিন বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছেন।’ দুর্নীতি-বিরোধী আইনের দু’টি ধারা ভঙ্গে আকমলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিলো পিসিবি। তাই ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে নিষিদ্ধ ছিলেন তিনি। যে কারণে আকমলের নিষেধাজ্ঞার শাস্তি গত ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর করা হয়েছে।
পাকিস্তানের দ্বিতীয় হাই-প্রোফাইল ক্রিকেটার হিসেবে নিষেধাজ্ঞা পেলেন আকমল। পিএসএলে ম্যাচ ফিক্সিংএর দায়ে ২০১৭ সালে পাঁচ বছরের (অর্ধেক স্থগিত করা হয়) নিষেধাজ্ঞা পেয়েছিলেন ওপেনার শারজিল খান।
২০০৯ সালে ওয়ানডে দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু করেছিলেন আকমল। গেল বছর পাকিস্তানের হয়ে সর্বশেষ খেলেছিলেন তিনি। সেগুলো ছিলো ওয়ানডে ও টি-২০ ফরম্যাটে। আর ২০১১ সালের পর দেশের হয়ে টেস্ট খেলতে পারেননি তিনি। পাকিস্তানের হয়ে ১৬ টেস্টে ১০০৩, ১২১ ওয়ানডেতে ৩১৯৪ ও ৮৪ টি-২০তে ১৬৯০ রান করেন আকমল।