মেইল অ্যাপ : ত্রুটি গ্রাহকের বিরুদ্ধে কাজে লাগানো হয়েছে এমন কোনো প্রমাণ নেই

15

আইফোন এবং আইপ্যাডের মেইল অ্যাপের ত্রুটি গ্রাহকের বিরুদ্ধে কাজে লাগানো হয়েছে “এমন কোনো প্রমাণ মেলেনি” বলে বৃহস্পতিবার দাবি করেছে অ্যাপল। ফলে এটি “গ্রাহকদের জন্য তাৎক্ষণিক কোনো ঝুঁকির কারণ নয়” বলেও দাবি করেছে প্রতিষ্ঠানটি।
আগের দিন বুধবারই আইফোন ও আইপ্যাডের মেইল অ্যাপে একটি নিরাপত্তা ত্রুটির বিস্তারিত জানিয়েছে স্যান ফ্রান্সিসকোভিত্তিক মোবাইল নিরাপত্তা সংস্থা জেকঅপস। প্রতিষ্ঠানটি দাবি অনুসারে ত্রুটির কারণে ঝুঁকির মুখে রয়েছে অ্যাপলের তৈরি প্রায় পঞ্চাশ কোটি ডিভাইস। শুধু তা-ই নয়, অন্তত ছয়টি সাইবার হামলায় এই ত্রুটি কাজে লাগানো হয়েছে বলে প্রমাণ পেয়েছে বলে দাবি নিরাপত্তা সংস্থাটির।
জেকঅপস প্রধান জুক আভ্রাহাম বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে এক হামলাকারী এই ত্রুটি ব্যবহার করেছেন বলে প্রমাণ রয়েছে। তবে, হ্যাকারের পরিচয় নির্দিষ্ট করে বলতে পারেনি তিনি।
আভ্রাহামের দাবি নিজেদের পক্ষ থেকে যাচাই করতে পারেনি রয়টার্সও।
বুধবারই আইফোন এবং আইপ্যাডের ইমেইল অ্যাপে ত্রুটির বিষয়টি স্বীকার করেছে অ্যাপল। ইতোমধ্যেই ‘ফিক্স’ তৈরি করেছে প্রতিষ্ঠানটি। পরবর্তী আপডেটে ত্রুটিযুক্ত ডিভাইসে পৌঁছে দেওয়া হবে ওই ফিক্স।
জেকঅপস-এর দাবি আংশিক মেনে নিলেও আইফোন গ্রাহকদের বিরুদ্ধে এই ত্রুটি ব্যবহার করা হয়েছে আভ্রাহামের এমন দাবি বৃহস্পতিবার নাকচ করেছে অ্যাপল।
বিবৃতিতে অ্যাপল বলেছে, “আমরা গবেষকের প্রতিবেদন নীবিড়ভাবে পর্যালোচনা করেছি এবং যে তথ্যগুলো দেওয়া হয়েছে তার ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছি যে, এতে আমাদের গ্রাহকদের জন্য তাৎক্ষণিক কোনো ঝুঁকি নেই।”
“ওই গবেষক মেইল অ্যাপের তিনটি ত্রুটি শনাক্ত করেছেন বটে, কিন্তু কেবল এগুলো আইফোন এবং আইপ্যাডের নিরাপত্তা এড়িয়ে যাওয়ার জন্য যথেষ্ট নয়। আর এগুলো গ্রাহকের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হয়েছে এমন কোনো প্রমাণও আমরা পাইনি।”
অ্যাপলের বিবৃতি নিয়ে তাৎক্ষণিক কোনো মন্তব্য করেননি আভ্রাহাম।