চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনা পরিস্থিতি : হোম কোয়ারেন্টাইনে ৮১২ জন ,বাইরে থাকা মানুষ আসছেই

দেশের বিভিন্ন স্থানে থাকা চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাসিন্দারা  বুধবারও ঘরে ফিরেছে। দূরপাল্লার যানবাহন বন্ধ থাকলেও  বুধবার সকালবেলা জেলা শহরের বিশ্বরোড মোড়ে বাস, ট্রাক, মিনি ট্রাকযোগে অনেক মানুষকে আসতে দেখা গেছে। এখানে মানুষের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। তবে পুলিশের বিশেষ তৎপরতায় দুপুরের পর পুরো শহরের লোকজনের আনাগোনা সেভাবে দেখা যায়নি। একাজে সহযোগিতা করায় জনসাধাণকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পুলিশ সুপার এ এইচ এম আবদুর রকিব।
যোগাযোগ করা হলে জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক বলেন-যারা ঢাকা থেকে এসেছে তাদেরও তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে, তারা প্রতিটি ওয়ার্ডে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটি করবেন। যা জনসচেতনতায় কাজে লাগবে।
এদিকে সিভিল সার্জন ডা. জাহিদ নজরুল চৌধুরী জানিয়েছেন, বুধবার পর্যন্ত ৮১২ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।
সদর উপজেলা নির্বাগী অফিসার মো. আলমগীর হোসেন জানান, গতকাল বুধবার রাতে নয়াগোলা ও এর আশপাশে দোকানপাট বন্ধে অভিযান চালিয়েছেন।

এদিকে মুদি দোকান, কাঁচাবাজার, ওষুধের দোকান ছাড়া অন্যান্য দোকানপাট বন্ধ রাখতে সদর মডেল থানা পুলিশের পক্ষ থেকে জনসচেতনতায় মাইকিং করা হয়েছে। সকালবেলায় জেলা শহরের নিউ মার্কেট, ক্লাব সুপার মার্কেট বন্ধ দেখা গেছে। তবে আদালতপাড়ায় জেলা আইনজীবী সমিতির কার্যালয়ের সামনে ভিড় লক্ষ করা গেছে।
অন্যদিকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেছে গ্রামীণ ট্রাভেলস। মঙ্গলবার বিকেলে শহরের ঢাকা স্ট্যান্ড থেকে উন্নয়ন মোড় পর্যন্ত পথচারী, রিকশা, ভ্যান, অটো, মোটরসাইকেল চালক ও দোকানদারদের মাস্ক ও করোনা প্রতিরোধে করণীয় শীর্ষক লিফলেট বিতরণ করেন গ্রামীণ ট্রাভেলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাকিব উদ্দিন। এ সময় জি এম আসাদুজ্জামান সানা, প্রশাসনিক কর্মকর্তা আব্দুল জলিলসহ গ্রামীণ ট্রাভেলসের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
জেলার গোমস্তাপুর থানা পুলিশের উদ্যোগেও এলাকার জনসাধারণকে সচেতন করতে এলাকায় মাইকিং করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে গোমস্তাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ জসিম উদ্দিন ও ওসি (তদন্ত) শামীম হোসেনের নেতৃত্বে গোমস্তাপুর থানা এলাকার বিভিন্ন মোড়ে মাইকিং এবং দোকানপাট বন্ধসহ লোকজনের জমায়েত বন্ধে কাজ করে পুলিশ।
গোমস্তাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ জসিম উদ্দিন জানান, অনুমোদিত দোকানপাট ছাড়া সকল প্রকার দোকানপাট বন্ধ রেখে গণজমায়েত থেকে সকলকে বিরত থাকার অনুরোধ করা হচ্ছে। এছাড়া জনসাধারণকে বাড়িতে অবস্থান করার জন্য বলা হচ্ছে।