চালের গুদামসহ কোচিং সেন্টারে : ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান, ৩ লাখ ৯০ হাজার টাকা জরিমানা

চাঁপাইনবাবগঞ্জে চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখতে অভিযান চালিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। রবিবার বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার আঙ্গারিয়াপাড়া ও নামোশংকরবাটি বড়িপাড়া এলাকায় কয়েকটি চালের গুদামে এ অভিযান চালানো হয়।
ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলমগীর হোসেন জানান, বাজারে চালের দাম বৃদ্ধির কারণ অনুসন্ধানে আজ (গতকাল) রবিবার বিকেলে গুদামগুলোতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় চাল মজুদ করে রাখার অপরাধে নামোশংকরবাটি বড়িপাড়ার জনি অটোরাইস মিলের মালিক সফিকুল ইসলামকে ১ লাখ টাকা, চাল ব্যবসায়ী মাহবুব হোসেনকে ১ লাখ টাকা, দক্ষিণ চরাগ্রামের শরিফুল ইসলামকে ১ লাখ টাকা, টনি আলীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়াও টিমরামপুর এলাকায় কোচিং সেন্টার খোলা রাখার দায়ে কনফিডেন্স প্রাইভেট হোম নামে একটি কোচিং সেন্টারের মালিক মাইনুল ইসলামকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে যপঠ জানিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আলমগীর হোসেন। অভিযানে জেলা জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জহিরুল ইসরাম উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসকে কেন্দ্রে করে হঠাৎ করে চালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বেড়ে যাওয়ায় কারণ অনুসন্ধানে রাইস মিলমালিকদের নিয়ে সদর উপজেলা প্রশাসনের এক জরুরি সভা করে। গত শুক্রবার বিকেলে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় মজুতদারদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে জানানো হয়, ধান ও চাল মজুতদারদের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে প্রশাসন। এছাড়াও আগেই জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়।