আগের দিন নিখোঁজ : পরদিন বাঁশবাগানে পাওয়া গেল শিশু রিমার মৃতদেহ

আগের দিন অর্থাৎ গত সোমবার রাতে নিখোঁজ মর্মে থানায় করা হলো সাধারণ ডায়েরি। পরদিন মঙ্গলবার সকালে বাঁশবাগানে মিলল ৭ বছরের শিশু মোসলেমা খাতুন রিমার লাশ। এ ঘটনায় হতবিহ্বল পুরো গ্রামবাসী। আর বুকফাটা আর্তনাদ রিমার মা-বাবাসহ স্বজনদের। সান্তনা দেয়ার ভাষাও নেই কারোর কাছে।
প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারণা, ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে শিশু রিমাকে। মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার চরবাগডাঙ্গা ইউনিয়নের মানিক হাজির টোলা গ্রামে। নিহত রিমা ওই গ্রামেরই রুহুল আমিনের মেয়ে। এ ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসছে এলাকাবাসী। দ্রুত দোষীদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে তারা।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সোমবার দুপুরে বাড়ি থেকে বের হয় শিশু রিমা। বিকেলে তার খোঁজ না পেয়ে স্থানীয় মসজিদগুলোতে মাইকযোগে প্রচারও করা হয়। এদিকে রাত হয়ে যাওয়ার পর রিমা ফিরে না আসায় ওই দিন রাতে সদর মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন রিমার বাবা রুহুল আমিন।
মঙ্গলবার সকালে মানিক হাজির টোলা গ্রামবাসী এমএইচ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পেছনে একটি বাঁশবাগানে রিমার মৃতদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ রিমার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ধর্ষণের পর রিমাকে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। বিষয়টি অধিকতর তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।