কেরানীগঞ্জের আগুনে দগ্ধ ৫ শ্রমিক হাসপাতাল থেকে ছাড় পেলেন

ঢাকার কেরানীগঞ্জের প্লাস্টিক কারখানায় আগুনের ঘটনায় দগ্ধ পাঁচ শ্রমিক বৃহস্পতিবার হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। ওই ঘটনায় এ পর্যন্ত মারা গেছেন ২২ জন। হাসপাতালে এখনো ভর্তি আছেন তিনজন। তারা ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন আছেন। যারা বাড়ি ফিরেছেন তারা হলেন- বশির, লাল মিয়া, জাকির, সাজিদ ও আসলাম। এখনো হাসপাতালে আছেন জিসান, শাখাওয়াত, সিরাজ।
বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতালের কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ঢামেক হাসপাতাল পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাছির উদ্দিন। তিনি বলেন, আমাদের এখানে মোট ৩১ জন রোগী এসেছিল। রাত আড়াইটা থেকে পরদিন সকাল ১০টার মধ্যে মারা যান ১০ জন। পরে শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয় ১২ জনকে। দুর্জয় নামের একজন বাড়ি চলে যান। এই ইউনিটে চিকিৎসাধীন ছিলেন আট জন। তাদের মধ্যে আজ (গতকাল বৃহস্পতিবার) বাড়ি যাচ্ছেন পাঁচজন। তিনি রোগীদের চিকিৎসার বিষয়ে বলেন, শরীরের ১০ থেকে ২৯ শতাংশ দগ্ধ ছিল অনেকের। আমাদের চিকিৎসকদের অক্লান্ত পরিশ্রমে এবং সুচিকিৎসায় আজ তারা সুস্থ। তাদের রিলিজ দেয়া হয়েছে। এখনো শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে যারা ভর্তি রয়েছেন তাদের অবস্থার উন্নতি হচ্ছে বলে জানান নাছির উদ্দিন।