নিজের বিবেককে সমুন্নত রেখে কাজ করবেন : ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে কবিতা খানম

নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম বলেছেন, “চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার মানুষের অনেক কৃতিত্ব আছে। অনেকেই দেশের অনেক উঁচু পর্যায়ে আছেন। দেশের উন্নয়নে কাজ করছেন তারা। তাই আমি চাই, এখানে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হোক।” প্রিজাইডিং অফিসারদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, “যে দায়িত্বটা আপনাদেরকে দেয়া হচ্ছে সেটা একটি মহান দায়িত্ব। নিজের বিবেককে সমুন্নত রেখে আপনারা কাজ করবেন।” বুধবার চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ সাধারণ নির্বাচন উপলক্ষে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।
নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ মিলনায়তনে দিনব্যাপী এ কর্মশালার আয়োজন করে জেলা নির্বাচন অফিস। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক। কর্মশালায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, নির্বাচনী প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক মো. নুরুজ্জামান তালুকদার, রাজশাহী অঞ্চলের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ফরিদুল ইসলাম ও পুলিশ সুপার টিএম মোজাহিদুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য দেন, জেলা নির্বাচন অফিসার মো. মোতাওয়াক্কিল রহমান। সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসার কাইসার মোহাম্মদের সঞ্চালনায় এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর শংকর কুমার কু-ু, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. জিয়াউর রহমানসহ অন্যরা।
নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম প্রিজাইডিং অফিসারদের উদ্দেশ্যে বলেন, আজকে এখানে যারা প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করলেন তাদের গুরুত্ব অনেক। একটি ভোটকেন্দ্রে একজন প্রিজাইডিং অফিসারের সিদ্ধান্তের ওপর অনেক কিছুই নির্ভর করে। তাই প্রিজাইডিং অফিসারদেরকে সঠিক ও নির্ভুল সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী আপনাদেরকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। তিনি বলেন, ভোটগ্রহণে কোনো প্রকার ব্যাঘাত না ঘটে সেদিকে আপনারা অবশ্যই বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখবেন। ভোট কেন্দ্রে ভোটারের নিরাপত্তার দায়িত্বটাও প্রিজাইডিং অফিসারের। নিরাপদভাবে প্রতিটি ভোটার যেন ভোট দিতে পারে।
কবিতা খানম বলেন, ভোট কেন্দ্রে অনেক ভোটারই মোবাইল ফোন নিয়ে যায়। মোবাইল নিয়ে কোনো ভোটার যেন ভিতরে প্রবেশ করতে না পারে সেই ব্যবস্থা আপনারা গ্রহণ করবেন। ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার পর নির্বাচনী মালামাল নিরাপদ জায়গায় রাখবেন। ভোটকে ন্দ্রের আশপাশে সবকিছু পরিদর্শন করে নিবেন। ভোটগ্রহণের সময় যেন কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা না ঘটে সে ব্যাপারে সচেষ্ট থাকবেন। নিরপেক্ষভাবে ভোটগ্রহণ করবেন। ভোটগ্রহণ শেষে সঠিকভাবে গণনা করবেন। গণনা শেষে ফলাফল ভোট কেন্দ্রেই ঘোষণা করবেন। আমি চাই- নির্বাচনটা সুষ্ঠু, স্বচ্ছ ও গ্রহণযোগ্য হোক।
জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক প্রিজাইডিং অফিসারদের উদ্দেশ্যে বলেন, নির্বাচনী মালামাল আগের দিন আপনারা ভালোভাবে বুঝেশুনে ভোট কেন্দ্রে নিয়ে যাবেন এবং এগুলো নিরাপদ স্থানে রাখবেন। ভোট কেন্দ্রের আশপাশে নির্দিষ্ট দূরত্ব পর্যন্ত আপনারা কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী আপনাদের পাশে থাকবে। নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য যা যা করা প্রয়োজন আপনারা তাই করবেন, বলেন তিনি।
পুলিশ সুপার টিএম মোজাহিদুল ইসলাম প্রিজাইডিং অফিসারদের উদ্দেশ্যে বলেন, ভোট কেন্দ্রের চারপাশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার ব্যবস্থা করবেন। ভোট গ্রহণের সময় কেন্দ্র থেকে কেউ বাইরে যাবেন না। অনেকেই আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে খেতে যান। অনেক এজেন্টও বাইরে যায়। কিন্তু আপনারা এটা করতে পারেন না, কাউকে বের হতেও দিবেন না। ভোট কেন্দ্রে কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হলে আপনারা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তা নিবেন। প্রতিটি কেন্দ্রেই পুলিশ থাকবে।
দিনব্যাপী কর্মশালায় ১৫৭ জন প্রিজাইডিং অফিসার ও ৯৯৫ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।
উল্লেখ্য, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আগামী ১৪ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে ১৫৭টি ভোট কেন্দ্রে কক্ষ থাকবে ৯৯৫টি। নির্বাচনে ৩ লাখ ৮১ হাজার ৯১৪ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।