হ্যাকার দল গ্যান্ডক্র্যাব আবারও সক্রিয়

বিশ্বব্যাপী নতুন করে সাইবার আক্রমণ শুরু করেছে কুখ্যাত হ্যাকার দল গ্যান্ডক্র্যাব। ধারণা করা হয়েছিল দলটি হয়তো কোন কারণে নিষ্ক্রিয় হয়ে গিয়েছিল। নতুন ধরনের একটি কম্পিউটার ভাইরাস শনাক্ত করেছেন সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান সিকিওরওয়ার্কস-এর গবেষকরা। এটি যাচাইয়ের পর তারা চূড়ান্তভাবে হ্যাকার দলটির উপস্থিতি নিশ্চিত করেছেন। প্রতিষ্ঠানটির দাবি, এই ভাইরাস নির্মাতারা ওই গ্যান্ডক্র্যাব দলেরই সদস্য– খবর বিবিসি’র। রাশিয়াভিত্তিক দলটি ইতোপূর্বে একটি বিশেষায়িত র‌্যানসমওয়্যার অন্যান্য কিছু হ্যাকারদের কাছে বিক্রি করেছে বলেও ধারণা করা হচ্ছে। হ্যাকার দলটির কোডে বিশেষ ধরনের ডেটা রয়েছে যা আক্রান্ত কম্পিউটারে কৌশলে প্রবেশ করে। এরপর তাদের সমস্ত ডেটা আটকে দিয়ে মুক্তিপণ হিসেবে অর্থ দাবি করে।

একটি হিসেব থেকে দেখা গেছে তারা এ পর্যন্ত ১৫ লাখ কম্পিউটারকে আক্রমণ করেছে যার মধ্যে হাসপাতালও রয়েছে। পরবর্তীতে দলটি সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠানগুলোকে তাক লাগিয়ে অবসরের ঘোষণা দেয়। তবে, তারা ঘোষণাটি দেয় ২০০ কোটি মার্কিন ডলার আয়ের পর। দলেরই কোনো এক সূত্রের পক্ষ থেকে বলা হয়, সম্পূর্ণ অর্থ নগদ উত্তোলনের পরই তারা তাদের ব্যবসা বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে। ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসে দলটি পুনরায় তাদের কার্যক্রম শুরু করে।

নতুন ধারার একটি র‌্যানসমওয়্যারের সঙ্গে এই দলটির যোগসাদৃশ্য লক্ষ্য করেছে সিকিওরওয়ার্কস। র‌্যাননসমওয়্যারটির নাম ‘রেভিল’ অথবা ’সনডিনোকিবি’। ম্যালওয়্যারটি ইতোমধ্যেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শতাধিক ডেন্টাল ক্লিনিক আক্রমণ করেছে বলে জানানো হয়েছে। গবেষকরা জানান, নতুন এই ম্যালওয়ারের কোড ভুলগুলোও আগের মতোই। সিকিওরওয়ার্কসের কাউন্টার থ্রেট ইউনিটের পরিচালক ডন স্মিথ জানিয়েছেন, “ব্যাং টু রাইটস নামে তাদের আরেকটি দল রয়েছে।” তিনি আরও বলেন, “তাদের এই পূনর্গঠনে আমরা মোটেও বিম্মিত নই। “এমন আশঙ্কাও রয়েছে যে, গ্যান্ডক্র্যাব ব্র্যান্ডের ওপর নজর কমাতে চাইছিলো তারা এবং এর মধ্যে নতুন পণ্য উন্মুক্ত করা হয়েছে।”