টেক্সাসের ওয়ালমার্টে বন্দুকধারীর গুলিতে অন্তত ২০ জন নিহত

2

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে বন্দুকধারীর গুলিতে অন্তত ২০ জন নিহত এবং ২৪ জন আহত হয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে। এল পাসো শহরে ওয়ালমার্টের একটি দোকানে এই গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। টেক্সাসের মেয়র গ্রেগ অ্যাবট এই ঘটনাকে সেখানকার ‘ইতিহাসে অন্যতম ভয়াবহ দিন’ বলে বর্ণনা করেছেন। যুক্তরাষ্ট্র মেক্সিকো সীমান্তের কয়েক মাইল দূরত্বে সিয়েলো ভিস্টা মলের কাছে ওয়ালমার্ট স্টোরে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। খবর বিবিসি বাংলা ও এএফপির।
একুশ বছরের একজন ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ এবং সে একাই হামলা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যে পুলিশ সদস্যরা তাকে আটক করেছেন, তাদের প্রশংসা করেছেন মেয়র গ্রেগ অ্যাবট।
যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে, সন্দেহভাজন ব্যক্তি ডালাস এলাকার প্যাট্রিক ক্রুসিয়াস।
সিসিটিভি ফুটেজে একজন ব্যক্তিকে বন্দুকধারী হিসেবে দেখা যাচ্ছে এবং যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম বলছে, গাঢ় টি-শার্ট পরা স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র হাতে এক ব্যক্তি হামলা করেছে।
বন্দুকধারীর প্রথম হামলার তথ্য পাওয়া যায় স্থানীয় সময় সকাল ১০টায়। পুলিশ বলছে, হামলার সময় ওয়ালমার্টের ওই দোকানটিতে ক্রেতাদের প্রচণ্ড ভিড় ছিল।
পুলিশের মুখপাত্র সার্জেন্ট রবার্ট গোমেজ বলেছেন, একমাত্র সন্দেহজনক ব্যক্তি হচ্ছেন একুশ বছর বয়সের একজন শ্বেতাঙ্গ ব্যক্তি। তবে তাকে আটক করার সময় পুলিশের কোনো কর্মকর্তাকে গুলি ছুঁড়তে হয়নি। পুরো এলাকাকে নিরাপদ করে তোলা সম্ভব হয়েছে বলে তিনি জানান।
হামলার সময় সেখানে উপস্থিত একজন ব্যক্তি গুলিবর্ষণের বর্ণনা দিয়েছেন। সিবিএস নিউজকে তিনি বলেছেন, “সেখানে কর্মীরা ছিল, তারা ভেতরে এসে বলছিল যে, তারা কয়েকটি গুলির শব্দ শুনেছে। তখন মানুষজন সবাই নিরাপত্তার জন্য দোকানটির ভেতর ছুটে আসছিল। আমি শান্ত থাকার চেষ্টা করছিলাম, কিন্তু ভেতরে ভেতরে আমি ভেঙে পড়ছিলাম।”
এল পাসোর মেয়র গ্রেগ অ্যাবোট বলেছেন, “এরকম দুঃখজনক ঘটনা এখানে কখনো ঘটেনি, কখনো ভাবিনি এল পাসোতে এমনটা কখনো ঘটবে। এটা আমাদের দুঃখ দিয়েছে।”
যুক্তরাষ্ট্রের ফ্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, ওই এলাকা থেকে যেসব খবর আসছে, তা খুব খারাপ, অনেকে মারা গেছেন।
তবে এটি যুক্তরাষ্ট্রে ধারাবাহিক বন্দুক হামলার সর্বশেষ ঘটনা। এর আগে ২০১৭ সালের ১ অক্টোবর লাস ভেগাসে কান্ট্রি মিউজিক কনসার্টে বন্দুক হামলায় ৫৮ জন নিহত এবং ৫০ জনের বেশি লোক আহত হয়। ২০১৬ সালের ১২ জুন অরল্যান্ডো নগরীর ফ্লোরিডা নাইটক্লাবে বন্দুক হামলায় ৪৯ জন নিহত হয়। এ ঘটনায় পুলিশের গুলিতে হামলাকারী নিহত হয়। ২০১২ সালের ডিসেম্বরে কানেকটিকাটে স্যান্ডি হুক এলিমেন্টারি স্কুলে বন্দুকধারীর গুলিতে ২০ জন নিহত হয়, এদের মধ্যে ১৪ শিশু স্কুল শিক্ষার্থী। যাদের বয়স ৬ থেকে ৭ বছর।
২০১৭ সালের ৫ নভেম্বর টেক্সাসের সান অন্টারিও কাছে একটি চার্চে রবিবারের প্রার্থনার সময় বন্দুকধারীর গুলিতে ২৫ জন নিহত ও অপর ২০ জন আহত হয়।
২০১৮ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি ফ্লোরিডার পার্কল্যান্ডে একটি স্কুলে বন্দুকধারীর হামলায় ১৪ শিক্ষার্থীসহ ১৭ জন নিহত হয়। হামলাকারী এই স্কুলেরই প্রাক্তন এবং বহিষ্কৃত এক ছাত্র। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে বন্দুক হামলায় ক্যালিফোর্নিয়ায় সান বারনারদিনো পার্টি সেন্টারে ১৪ জন নিহত ও ২২ জন আহত হয়।
২০১৯ সালের ৩১ মে ভার্জিনিয়া বিচে বন্দুক হামলায় ১২ জন নিহত হয়। ২০১৮ সালের ৭ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের এক মেরিন সেনার বন্দুক হামলায় ক্যালিফোর্নিয়ার এক বারে ১২ জন নিহত হয়। ২০১২ সালের জুলাইয়ে কলোরাডো অঙ্গরাজ্যে ব্যাটমান ফ্লিম শো’তে বন্দুক হামলায় ১২ জন নিহত এবং ৭০ জন আহত হয়। ২০১৮ সালের ২৭ অক্টোবর পেনসেলভিয়ার পিটসবুর্গ সিনাগগে বন্দুক হামলায় ১১ জন নিহত হয়। ২০১৮ সালের ১৮ মে টেক্সাসের এক স্কুলে বন্দুক হামলায় ৮ স্কুল শিক্ষার্থীসহ ১০ জন নিহত হয়।