২১০০ সালে দেশের জনসংখ্যা হবে ১৭ কোটি : জেলা প্রশাসক

‘জনসংখ্যা ও উন্নয়নে আন্তর্জাতিক সম্মেলনের ২৫ বছর : প্রতিশ্রুতির দ্রুত বাস্তবায়ন’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারাদেশের মতো বৃহস্পতিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জেও বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয় র‌্যালি, আলোচনা, পরিবার পরিকল্পনা এবং মা ও শিশু স্বাস্থ্য কার্যক্রমে উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্য জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ইউনিয়ন, উপজেলা পরিষদসহ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের মাঠপর্যায়ে কর্মরত মাঠকর্মীদের ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করা হয়েছে।
র‌্যালি শেষে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক ডা. আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক। এ সময় তিনি বলেন- ২১০০ সালে বাংলাদেশের জনসংখ্যা হবে ১৭ কোটির কিছু উপরে। এটা হিসেব করে বের করা হয়েছে। কারণ, জাপানে এরই মধ্যে প্রতিবছর ১ লাখ জনসংখ্যা কমছে। আমাদের দেশেও একসময় জনসংখ্যা বৃদ্ধি না পেয়ে কমবে।
জেলা প্রশাসক বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিক প্রত্যেক গ্রামে না হলেও আমাদের জেলায় ১৫৬টি কমউিনিটি ক্লিনিক রয়েছে। এসব কমিউনিটি ক্লিনিকে ৩০ রকমের ওষুধ দেয়া হয়। সেখানে সেবা দেবার জন্য সবসময় লোক থাকে। আমাদের কোনো ছোট অসুখ হলে আমরা সে ক্লিনিকে যাব। যদি আমি সেখানে আমার কাক্সিক্ষত সেবা না পায় তাহলে উপজেলা বা জেলা সদর হাসপাতাল যাব। বর্তমানে জেলা সদর হাসপাতাল ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল।
জেলা প্রশাসক শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন- তোমাদের সোনার নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে হবে আর সে জন্যই লেখাপড়াতে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিতে হবে। বাবা-মায়ের কথা, শিক্ষকদের কথা শুনতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর এসডিজি’র লক্ষ্য ২০২১ সালের আগেই পূরণ হয়ে যাবে। এ জন্য আমাদের ছেলেমেয়েকে সুস্বাস্থ্য নিয়ে বড় হতে হবে। লেখাপড়ায় শতভাগ মনোযোগ দিতে হবে।
এতে স্বাগত বক্তব্য দেন জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক রওশন আরা বেগম। আলোচনা অংশ নেন, শিক্ষার্থী প্রত্যাশাসহ অন্যরা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এ কে এম তাজকির উজ জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) দেবেন্দ্র নাথ উরাঁও, ডা. আনোয়ার জাহিদ, ডা. ময়েজ উদ্দিন, ঝিলিম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তসিকুল ইসলাম, বারঘরিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল খায়েরসহ সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মকর্তা-মাঠকর্মী, এনজিও প্রতিনিধিবৃন্দ। পরে ক্রেস্ট ও সনদপত্র বিতরণ করা হয়।
গোমস্তাপুর প্রতিনিধি : জেলার গোমস্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা দপ্তরের উদ্যোগে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালিত হয়েছে।দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা চত্বর থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয। র‌্যালিটি উপজেলা চত্বর থেকে বের হয়ে রহনপুর পৌর এলাকার প্রধান প্রধান সডক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয। পরে উপজেলা সভা কক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব রাযহান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন, গোমস্তাপুর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শেখ মোহাম্মদ আদম, মাঠ কর্মী সোহেল রানা। সভা শেষে ৪জনকে কাজের দক্ষতার উপর পুরস্কৃত করা হয।

নিয়ামতপুর প্রতিনিধি : নওগাঁর নিয়ামতপুরে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষ্যে র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। র‌্যালিটি উপজেলা পরিষদের প্রধান ফটকের সামনে থেকে শুরু করে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। বাহাদুরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফরিদ আহম্মেদ।
উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার সেলিম উদ্দিনের পরিচালনায় আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন নিয়ামতপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যান বজলুর রহমান নঈম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার তরিকুল ইসলাম, মহিলা বিষয়ক কর্মকতা নিলুফার ইয়াসমিন, সহকারী প্রকৌশলী (বিএমডিএ) মতিউর রহমান, এসআই শরিফুল ইসলাম।
আলোচনা সভা শেষ শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন হিসেবে বাহাদুরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এবং শ্রেষ্ঠ মাঠকর্মীদের হাতে ক্রেস্ট ও সনদপত্র তুলে দেন প্রধান অতিথি ফরিদ আহম্মেদ।