সন্ত্রাসবিরোধী আইনে ৩ জেএমবি সদস্যের ১০ বছর করে কারাদণ্ড

7

চাঁপাইনবাবগঞ্জে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে দায়েরকৃত একটি মামলার রায়ে জেএমবি’র ৩ সদস্যকে ১০ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড, সেই সাথে ১০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো ৬ মাস করে কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ শওকত আলী আসামিদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন।
দন্ডিতরা হলেন, জেলার সদর উপজেলার জহুরপুর বকরীপাড়া গ্রামের দুরুল হোদার ছেলে সেলিম ওরফে হারুন মিস্ত্রী (৩৬) এবং জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার নিমতলাকাঁঠাল এলাকার আব্দুল মাবুদের ছেলে শাহাদৎ (৪২) ও কয়লারদিয়াড় এলাকার মৃত তৈয়ব আলীর ছেলে আব্দুল মুমিন (৩৪)।
মামলার বরাত দিয়ে অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি আঞ্জুমান আরা জানান, ২০০৯ সালের ৭ জুলাই দুপুরে র‌্যাব-৫ রাজশাহীর একটি দল ও বিজিবি সদস্যরা সেলিমকে গ্রেফতারে যৌথ অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে সেলিমের বাড়ি ঘেরাও করা হয়। এরপর সেলিমের সাথে গুলিবিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এসময় সেলিম পালিয়ে যাবার চেষ্টাকালে তাকে ১টি বিদেশী পিস্তল ও ৮ রাউন্ড গুলিসহ গ্রেফতার করা হয়। ঘটনার পরদিন ৮ জুলাই র‌্যাবের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনের ৮, ৯ ও ১০ ধারায় মামলা করেন। সেলিমের স্বীকারোক্তি অনুয়ায়ী অপর দুই আসামি শাহাদৎ ও আব্দুল মুমিনকে পরবর্তীতে গ্রেফতার করে পুলিশ।
আঞ্জুমান আরা আরো জানান, ২০১৬ সালের ৩০ মার্চ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও সদর থানার তৎকালীন উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামরুল ইসলাম আদালতে ৩ জনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এ মামলায় ৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত বুধবার এই মামলার রায় ঘোষণা করেন।