অনুমোদিত নকশা, অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা ও গ্যারেজ ছাড়া ভবন নির্মাণ করতে দেয়া হবে না : গৃহায়নমন্ত্রী

গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, অনুমোদিত নকশা এবং বিল্ডিং কোড অনুযায়ী ফাঁকা জায়গা, অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা ও গ্যারেজ ছাড়া কোনো ভবন নির্মাণ করতে দেয়া হবে না। তিনি গতকাল শুক্রবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে ডিআরইউ আয়োজিত ‘মিট দ্য রিপোর্টার্স’ অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।
রাজধানীর নিমতলী, চুড়িহাট্টা ও বনানীর এফআর টাওয়ারের ভয়াবহ অগ্নিকাÐের ঘটনার উল্লেখ করে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, ঢাকা মহানগরীতে এ ধরনের ঘটনা আর যাতে না ঘটে এবং সাধারণ মানুষের জীবন যেন বিপন্ন না হয় সেজন্য দুর্নীতি ও অনিয়মকে কোনোভাবেই প্রশ্রয় দেয়া হবে না। তিনি বলেন, ‘কংক্রিটের জঞ্জাল শহর নয়, সবার সহায়তায় আমরা সারা বাংলাদেশে পরিবেশবান্ধব আবাসন ব্যবস্থা গড়ে তুলতে চাই।’
ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির অত্যন্ত জনপ্রিয় ‘মিট দ্য রিপোর্টার্স’ অনুষ্ঠানে শ ম রেজাউল করিম খোলামনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।
এ সময় মন্ত্রী উল্লেখ করেন, পূর্বাচল ও উত্তরার মতো জায়গাতেও রাজউকের নকশার বাইরে ন্যূনতম কোনো কাজ করতে দেয়া হবে না। সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, ‘আমি প্রতিশ্রæতি দিয়েছি বনানীর এফআর টাওয়ারের তদন্ত আলোর মুখ দেখবে, আমি আনন্দিত, তদন্ত রিপোর্ট সাংবাদিকদের সামনে আমি নিয়ে এসেছি এবং ৬২ জন কর্মকর্তাকে অভিযুক্ত করে রিপোর্ট দেয়া সম্ভব হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘আমার জানা মতে বাংলাদেশের গত আটচল্লিশ বছরের ইতিহাসে এমন কোনো রেকর্ড নাই যে, নিজ সংস্থার ৬২ জনকে দায়ী করে মন্ত্রী প্রেস ব্রিফিং করে সবার হাতে রিপোর্ট তুলে দেন। দুর্নীতির ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জিরো টলারেন্স নীতির প্রশ্নে ৬২ জনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রাজউককে আমরা লিখিত নির্দেশ দিয়েছি।’
শ ম রেজাউল করিম বলেন, ‘রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় রাজউকের ২৪টি পরিদর্শন দল বহুতল ভবন পরিদর্শন করে ১৮১৮টি ভবনে অনিয়ম পেয়েছে। এসব ভবন মালিকরা অনেকেই রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিকভাবে প্রভাবশালী। তাদের ব্যাপারে রিপোর্ট করা হবে, এটা অনেকেই ভাবেননি। আমি রিপোর্ট সংগ্রহ করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রাজউককে নির্দেশ দিয়েছি।’ তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রের সংবিধান একেকজনের জন্য একেকটি আইন হবে এ সুযোগ দেয়নি, আইনের সমব্যবস্থা সকলের জন্য এক। তাই একটি বাড়িকেও আমরা আইনের বাইরে রাখতে চাই না।’
মন্ত্রী যে কোনো অনিয়মের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনেরও আহŸান জানান।
ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান।