চলতি বছর যমুনার ওপর রেল সেতু নির্মাণের কাজ শুরু হবে : রেলমন্ত্রী

চলতি বছর যমুনা নদীর ওপর রেল সেতু নির্মাণের কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। তিনি বলেন, রেলপথকে ঢেলে সাজাতে কাজ করছে সরকার। পাশাপাশি নতুন আরও ১৫টি জেলাকে রেলে সম্পৃক্ত করা হবে। শুক্রবার রাজধানীর ফারস হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টে ওয়ার্ল্ডে বুদ্ধিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের (বাংলাদেশ) প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়েজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, বঙ্গবন্ধু সেতুর ওপর এখন এক লাইনে রেল চলাচল করছে। আমরা সম্পূর্ণ ভিন্ন আরও একটি রেল সেতু বানাতে চাই। ডুয়েল গেজ বিশিষ্ট ডাবল রেল লাইনের এ সেতুর নির্মাণে সব সমীক্ষা শেষ হয়েছে। জাপানি অর্থায়নে এটির নির্মাণ কাজ শেষ হবে। তিনি বলেন, বর্তমানে ৪৪টি জেলায় সঙ্গে রেল যোগাযোগ রয়েছে। আমাদের অনেক প্রকল্প রয়েছে, নতুন করে আরও কিছু প্রকল্প হাতে নেওয়া হচ্ছে। আমরা নতুন করে আরও ১৫টি জেলাকে রেলে সম্পৃক্ত করতে চাই। তাছাড়া ঢাকা টু চট্টগ্রাম ৩০০ কিলোমিটার হাইস্পিড গতির ট্রেন চালুর সমীক্ষা চলছে। চট্টগ্রামের সব রেল ডাবল লাইনে রূপান্তর করা হবে। মন্ত্রী বলেন, আমাদের নতুন মেগা প্রকল্পেরর অধীনে ঢাকা থেকে পদ্মাসেতু হয়ে যশোর পর্যন্ত রেল যোগাযোগ হবে।

পাশাপাশি ফরিদপুর থেকে হয়ে পায়রা বন্দর এবং ঢাকা থেকে পায়রা বন্দর রেলপথে সম্পৃক্ত করা হবে। একই সঙ্গে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম বন্দরকেও সংযুক্ত করা হবে। এ ছাড়া চট্টগ্রাম থেকে রামু হয়ে কক্সবাজার ও রামু থেকে মিয়ানমার সীমান্ত পর্যন্ত রেল সংযোগ করা হবে। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে একটি শান্তিপ্রিয় দেশ। এখানে সব ধর্মের মানুষ সমান সুযোগ-সুবিধা পায়। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকা মানে সবার অধিকার বাস্তাবায়ন হওয়া। সরকার এ নীতিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এর আগে সকাল ৯টায় বাড্ডায় বুদ্ধিষ্ট অ্যাসোসিয়েশনের ভবনের উদ্বোধন করা হয়। এটির উদ্বোধন করেন সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী। লায়ন রিংকু কুমার বড়ুয়ার সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশে নিযুক্ত কানাডিয়ান হাইকমিশনার বেনোয়েট প্রিফনটেইন, ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূত ত্রান ভান খোয়া। উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি রানা দাশ গুপ্ত, হিন্দু কল্যাণ ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুমার বিশ্বাসসহ ভিক্ষু সংঘরা।