আইসিটি খাতে বাংলাদেশের সাথে কাজ করতে এস্তোনিয়ার আগ্রহ প্রকাশ

এস্তোনিয়ার রাষ্ট্রপতি কের্তি কালজুলায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বাংলাদেশের সাথে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। মঙ্গলবার এস্তোনিয়ার রাজধানী তালিনে ‘পঞ্চম ই-গভর্নেন্স সম্মেলন ২০১৯’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এস্তোনিয়ার রাষ্ট্রপতি কের্তি কালজুলায়ের সাঙ্গে সাক্ষাৎ করলে তিনি এ আগ্রহ প্রকাশ করেন।
এস্তোনিয়ার রাষ্ট্রপতি বলেন, অল্প সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ আইসিটিসহ বিভিন্ন খাতে অনেক সাফল্য অর্জন করেছে। আগামী দিনগুলোতে বাংলাদেশ বহুদূর এগিয়ে যাবে। তিনি বিভিন্ন বিষয়ে জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে বাংলাদেশের সাথে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেন।
জুনাইদ আহমেদ পলক মঙ্গলবার এস্তোনিয়ার রাজধানী তালিন নগরীতে সুইসটল তালিন হোটেলে ‘পঞ্চম ই-গভর্নেন্স সম্মেলন ২০১৯’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী পর্যায়ে রাউন্ড টেবিল বৈঠক শেষে এস্তোনিয়ার রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এ সময় তারা পারস্পারিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় বিশেষ করে বাংলাদেশের আইসিটি খাতে সর্বশেষ অগ্রগতিসহ বিভিন্ন বিষয়ে মতবিনিময় করেন। প্রতিমন্ত্রী ‘ভিশন-২০২১’ তথা ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদৃষ্টিসম্পন্ন কর্মসূচি তুলে ধরে বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে গেছে। দেশের তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত ডিজিটাল সেবা পৌঁছে দিতে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশে মোবাইল ব্যাংকিংসহ অনলাইনভিত্তিক কার্যক্রম উল্লেখযোগ্য হারে বেড়ে চলেছে। সরকার ইন্টারনেট সংযোগসহ আধুনিক সুযোগ-সুবিধা প্রদানের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামকে শহরে রূপান্তরিত করতে কাজ করছে। তিনি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে হাইটেক পার্ক, ইনফো সরকার-৩ পর্যায় প্রকল্প, ডাটা সেন্টার, স্টার্টআপ প্রকল্পসহ চলমান কার্যক্রম সম্পর্কে এস্তোনিয়ার রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন।
উল্লেখ্য, আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক এস্তোনিয়ার রাজধানী তালিনে অনুষ্ঠিত ‘পঞ্চম ই-গভর্নেন্স সম্মেলন ২০১৯’ এ প্যানেল আলোচক হিসেবে অংশগ্রহণ করতে বর্তমানে এস্তোনিয়ায় অবস্থান করছেন। খবর বাসস।