সুদানে সেনা শাসক ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে মতৈক্য

সুদানের সেনা শাসক ও বিক্ষোভকারীদের নেতারা বুধবার পূর্ণ বেসামরিক প্রশাসনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের জন্য তিন বছর মেয়াদি একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের ব্যাপারে একমত হয়েছেন। যদিও একটি নতুন সার্বভৌম পরিষদ গঠনের ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেনি দুই পক্ষ। সাবেক প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরের ৩০ বছরের শাসনের অবসানের পর বিক্ষোভকারীরা একটি বেসামরিক নেতৃত্বাধীন অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের দাবি জানাচ্ছে। কিন্তু বশিরকে উচ্ছেদকারী সেনা কর্মকর্তারা ক্ষমতা আঁকড়ে আছেন। খবর এএফপির।
চলতি মাসের গোড়ার দিকে দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা শুরু হয়। তবে এই আলোচনার মধ্যেই খার্তুমে সেনা সদর দপ্তরের বাইরে অবস্থান বিক্ষোভ চলাকালে বন্দুক হামলায় সেনাবাহিনীর এক মেজর ও পাঁচ বিক্ষোভকারী প্রাণ হারায়। অজ্ঞাত পরিচয় বন্দুকধারীরা এ হামলা চালায়। বুধবার ভোরে উভয়পক্ষ একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের সময়সীমা নিয়ে মতৈক্যে পৌঁছানোর ঘোষণা দেয়।
সামরিক পরিষদের সদস্য লেফটেন্যান্ট জেনারেল ইয়াসির আল-আত্তা সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা ক্ষমতা হস্তান্তরের জন্য তিন বছরের অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের ব্যাপারে সম্মত হয়েছি।’ আত্তা বলেন, একদিনের মধ্যে বিক্ষোভকারীদের সংগঠন অ্যালায়েন্স ফর ফ্রিডম অ্যান্ড চেঞ্জের সাথে যৌথভাবে একটি স্বাধীন সার্বভৌম পরিষদ গঠনসহ ক্ষমতা ভাগাভাগির ব্যাপারে একটি চূড়ান্ত চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে। আত্তা আরো বলেন, ‘২৪ ঘণ্টার মধ্যে জনগণের আকাক্সক্ষা অনুযায়ী এই চুক্তি সম্পন্ন হবে বলে আমরা অঙ্গীকার করছি।’ তিনি বলেন, তিন বছরের এই অন্তর্বর্তীকালীন সময়ের প্রথম ছয় মাসে দারফুর, ব্লুনাইল ও দক্ষিণ কোর্দোফানের মতো গোলযোগপূর্ণ এলাকাগুলোর বিদ্রোহীদের সঙ্গে শান্তি চুক্তি স্বাক্ষর করা হবে।
সেনা কর্মকর্তারা প্রাথমিকভাবে দুই বছরের জন্য অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের কথা বলেছিলেন। কিন্তু বিক্ষোভরত নেতারা এই সরকারের মেয়াদ চার বছর রাখার দাবি জানায়। প্রধান সমাঝোতার বিষয়টি এখনো বাকি রয়েছে। দেশটির সবচেয়ে শক্তিশালী প্রতিষ্ঠান স্বাধীন সার্বভৌম পরিষদ নিয়ে সমঝোতা এখনো বাকি রয়েছে। সেনাকর্মকর্তারা তাদের নেতৃত্বেই এই পরিষদ গঠন করতে চান। কিন্তু বিক্ষোভরত নেতারা পরিষদে বেসামরিক ব্যক্তিদের প্রাধান্য দাবি করছেন। স্বাধীন সার্বভৌম পরিষদ গঠনের পর একটি নতুন বেসামরিক সরকার গঠন করা হবে। অন্তর্বর্তীকালীন মেয়াদ শেষে এই বেসামরিক সরকারের অধীনেই দেশের প্রথম বশির পরবর্তী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।