বিশ্বকাপে খেলতে না পেরে নারাইনের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ

6

চোটের কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে জায়গা করে নিতে পারেননি সুনীল নারাইন। বিশ্বকাপে খেলতে না পেরে হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে এই স্পিনারের
মনে হচ্ছিল, এবার হলেও হতে পারে। পরিবর্তন এসেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের নেতৃত্বে। বোর্ডের নতুন নেতা রিকি স্কেরিট ‘বিদ্রোহী’ ক্রিকেটারদের সঙ্গে সম্পর্কের বরফ গলানোর উদ্যোগ নিয়েছেন। বিদ্রোহীদের একজন সুনীল নারাইনও স্বপ্ন দেখছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে প্রথমবার বিশ্বকাপ খেলার। কিন্তু হলো না, আঙুলের চোট ইংল্যান্ডে যেতে দিল না টি-টোয়েন্টি ইতিহাসের অন্যতম সেরা বোলারকে। বিশ্বকাপে যেতে না পারায় রক্তক্ষরণই হচ্ছে নারাইনের হৃদয়ে। আবারও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মেরুন জার্সি গায়ে তোলার আশা অবশ্য ছাড়েননি ৩০ বছর বয়সী স্পিনার।
নারাইনের আন্তর্জাতিক অভিষেক ২০১১ সালের ডিসেম্বরে। ২০১২ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়েও বড় অবদান তাঁর রহস্য স্পিনের। কিন্তু ২০১৫ সালে ‘আসল’ বিশ্বকাপটাই খেলা হয়নি তাঁর। বোলিং অ্যাকশন শুধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরলেও ওয়ানডে বিশ্বকাপের দল থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন নারাইন।
কয়েক মাস আগে ডান হাতের মধ্যমার লিগামেন্ট ছিঁড়ে যায় নারাইনের। তা নিয়েই আইপিএল খেললেও একটানা বেশি বল করতে পারছেন না। বিশ্বকাপ না খেলার কারণ হিসেবে পরশু এটাকেই দেখালেন নারাইন, ‘টি-টোয়েন্টিতে ৪ ওভার বল করতে হয়। তা-ও করতে কষ্ট হচ্ছে, বারবার সাহায্য নিতে হচ্ছে ফিজিওর। এই চোটই আমাকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে দিচ্ছে না। বিশ্বকাপটা খেলতে পারলে ভালো লাগত। (চোট নিয়ে খেলাটা) আমার ও দলের জন্য ভালো হতো না।’
২০১৬ সালের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে আর খেলা হয়নি। তবে নারাইন এখনো আশা ছাড়েননি, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মিস করছি, মিস করছি ওয়েস্ট ইন্ডিজকে প্রতিনিধিত্ব করা। আমার মনটা পড়ে আছে ওখানেই।’ ওয়েস্ট ইন্ডিজও কি তাঁকে মিস করছে না!