বিজেপিকে ভুলে ভোট, রাগে আঙুল কর্তন

ভারতের উত্তর প্রদেশের পবন কুমার ভোট দিতে চেয়েছিলেন বহুজন সমাজ পার্টিকে (বিএসপি)। কিন্তু ইভিএমে প্রতীক বুঝতে ভুল করে তিনি ভোট দিয়ে বসেন ভারতীয় জনতা পার্টিকে (বিজেপি)।
গত বৃহস্পতিবার ভারতের জাতীয় নির্বাচনে দ্বিতীয় দফায় ভোট গ্রহণ হয়। উত্তর প্রদেশের বুলান্দশহরের বাসিন্দা পবন যে কেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন সেখানে ইভিএমে ভোট গ্রহণ করা হয়।
ভারতে ইভিএমে দলীয় প্রতীকের পাশে একটি বাটন থাকে, যেটিতে চাপ দিয়ে ভোটাররা ভোট দেন। একবার চাপ দেয়ার পর ভোট পরিবর্তনের আর সুযোগ থাকে না। ভোটগ্রহণ কক্ষে ঢোকার পর ভোটারদের তর্জনীতে অমোচনীয় কালি লাগিয়ে দেয়া হয়।
ভারতের নিম্নবর্ণের হিন্দু সম্প্রদায় দলিতদের রাজনৈতিক ‘আইকন’ মায়াবতীর দল বহুজন সমাজ পার্টি (বিএসপি)। দলটি ভারতের সবচেয়ে জনবহুল রাজ্য উত্তর প্রদেশে অত্যন্ত প্রভাবশালী। মায়াবতী চারবার এই প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন। বিএসপির প্রতীক ‘হাতি’; বিজেপির প্রতীক ‘পদ্মফুল’।
পবন বলেন, তিনি বিএসপিকে ভোট দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু মেশিনে অনেক প্রতীক দেখে তিনি বিভ্রান্ত হয়ে যান এবং বিজেপিকে ভোট দিয়ে বসেন।
দলিত সম্প্রদায়ের পবন পছন্দের দলকে ভোট দিতে না পেরে রাগে-দুঃখে অমোচনীয় কালি লাগানো নিজের তর্জনী কেটে ফেলেন।
পরে এক ভিডিওতে নিজের কাটা তর্জনী দেখিয়ে বলেন, ‘আমি হাতিতে ভোট দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ভুলে পদ্মফুলে ভোট দিয়ে ফেলি।’
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দল বিজেপিকে ক্ষমতা থেকে হটাতে এবার মায়াবতীর দল বিএসপি দীর্ঘদিনের আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বী অখিলেশ যাদবের সমাজবাদী পার্টির সঙ্গে জোট বেঁধেছে। যাকে তারা নাম দিয়েছেন ‘গাঁটবন্ধন’। বর্তমানে উত্তর প্রদেশের ক্ষমতাও বিজেপির দখলে।