র‌্যাব, বিজিবি ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয়ের অভিযান : মাদকদ্রব্য উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৪

চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে মাদক বিরোধী পৃথক পৃথক অভিযান চালিয়েছেন র‌্যাব, বিজিবি ও জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয়ের সদস্যরা। অভিযানে ১ হাজার ২১৫ পিস ইয়াবা ও ৫৩৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর মধ্যে জেলা শহরের নিউ মার্কেট এলাকা থেকে ৯৫৫ পিস ইয়াবাসহ মো. তুষার আলী (২২) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেন র‌্যাব-৫, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের সদস্যরা।
র‌্যাব-৫, রাজশাহী এর উপ-পরিচালক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্প গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের নিউমার্কেট এলাকাস্থ ক্লাব সুপার মার্কেটের মা মিষ্টি বাড়ী দোকানের সামনে এক ব্যক্তি অবৈধভাবে মাদকদ্রব্য বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল সেখানে অভিযান চালায়।  মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১০ টায় চালানো অভিযানে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার টিকারামপুর এলাকার মো. ইসারুল হকের ছেলে মো. তুষার আলী (২২) কে ৯৫৫ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করা হয়। উদ্ধার হওয়া ইয়াবার আনুমানিক মূল্য ২ লক্ষ ৮৬ হাজার ৫শ টাকা। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে বলে র‌্যাব জানায়। গ্রেপ্তারকৃত তুষার আলীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।
অন্যদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সীমান্তে স্পেশাল টাস্কফোর্স মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে ৪৭০ বোতল ফেন্সিডিল ও ২৬০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জস্থ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর ৫৩ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে.কর্নেল সাজ্জাদ সরোয়ার জানান, ৫৩ ব্যাটালিয়নের স্পেশাল টাস্কফোর্স দল-৪ (ঈগল) গতকাল বুধবার বাখের আলী বিওপি জেলার সদর উপজেলার ১০ নং বাধের পার্শ্বে মালবাগডাঙ্গা অড়হল ক্ষেতের মধ্যে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে গোয়ালডুবি গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে মো. কালু মিয়া (৬০), বাখেরআলী গ্রামের মো. আজিজুল হকের ছেলে মো. রাজিব আলী (১৮) কে ৪৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতদের ফেন্সিডিলসহ চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।
লে.কর্নেল সাজ্জাদ সরোয়ার আরো জানান, স্পেশাল টাস্কফোর্স দল ৪ (ঈগল) জেলার সদর উপজেলার জহুরপুরটেক বিওপি সদস্যরা সীমান্ত পিলার ২৩/৭ এস হতে আনুমানিক ১৫০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে বাখেরআলী মাঠ এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানকালীন ১ জন অজ্ঞাত ব্যক্তির চলাচল সন্দেহজনক হলে তাকে তল্লাশীর জন্য চ্যালেঞ্জ করা হয়। এসময় সে তার হাতে থাকা একটি ব্যাগ ফেলে ভারতের দিকে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে ব্যাগটি তল্লাশী করে ৪৭০ বোতল ফেন্সিডিল পাওয়া যায়। যার আনুমানিক মূল্য ১ লাখ ৮৮ হাজার টাকা। স্পেশাল টাস্কফোর্স দল ৫ (বাজ) ফতেপুর বিওপির সদস্যরা সীমান্ত পিলার ১৩/৪ এস হতে আনুমানিক ২৫০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার সরকার পাড়া মাঠ এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে ১ জন অজ্ঞাত ব্যক্তির চলাচল সন্দেহজনক হলে তাকে তল্লাশীর জন্য চ্যালেঞ্জ করা হয়। এসময় সে তার হাতে থাকা একটি ব্যাগ ফেলে ভারতের দিকে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে ব্যাগটি তল্লাশী করে ২৬০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়; যার আনুমানিক মূল্য ৭৮ হাজার টাকা। ফেন্সিডিল ও ইয়াবাগুলো মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরকে অবগতি সাপেক্ষে ধ্বংসের জন্য ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তরে মাদকদ্রব্য স্টোরে জমা করা হয়েছে। এ অভিযান ২টি ৫ ফেব্রুয়ারি পরিচালনা করা হয়।
অপর দিকে পরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম জানান, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ কার্যালয়ের সদস্যরা মঙ্গলবার দিবাগত রাতে জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার কালুপুর বেইলী ব্রিজের নিকট অভিযান চালিয়ে ২০ বোতল ফেন্সিডিল ও একটি মোটর সাইকেলসহ মাহির (২৫) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তার হওয়া মাহির বাবুপাড়ার তৌফিকুল ইসলামের ছেলে। এসময় আব্দুল্লাহ নামের আরো একজন পালিয়ে যায় বলে তিনি জানান।