বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচি পালিত

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার পোল্লাডাঙ্গা ক্লাব মাঠে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ও সচেতনতামূলক কর্মসূচি পালিত হয়েছে।
‘স্পর্শ’ স্বেচ্ছায় রক্তদান সংস্থার সহযোগিতায় পোল্লাডাঙ্গা সমাজ সেবক সংঘ এ-কর্মসূচির আয়োজন করে। এ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. এসএফএম সায়ফুল ফেরদৌস মো. খায়রুল আতাতুর্ক।
ওই ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল হুদা অলকের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, জেলা বিএমএর সভাপতি ডা. দুরুল হোদা, জেলা বিএমএর সাধারণ সম্পাদক ডা. গোলাম রাব্বানী। এ-সময় উপস্থিত ছিলেন-ওই মহল্লার বিশিষ্ট ব্যক্তি মো. হাসান আলী ও মো. কলিম উদ্দিন।  প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিভিল সার্জন বলেন, প্রতিটি মানুষেরই রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করা উচিত। কারণ, রক্তে থ্যালাসেমিয়া নামক এক নিরব মহামারী থাকে। এটা বংশগত-জন্মগত রক্তস্বল্পতা রোগ। এ যাবত জেলায় প্রায় ২৫০ জন রোগী পাওয়া গেছে যারা এ-রোগে আক্রান্ত। বিশেষ করে গর্ভবতী মহিলাদের রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করা জরুরি। এ রোগে আক্রান্ত শিশুদের সবসময় অন্যের রক্ত গ্রহণ করে বেঁচে থাকতে হয়। এতে রোগী ও তার পরিবার শারীরিক, মানসিক ও অর্থনৈতিক দুরাবস্থায় পড়ে। এটা বাহক কোন রোগ নয়। শুধু বাবা-মা দুজনই এ রোগের বাহক হলে শিশু থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত হয়। তাই অনাগত সন্তানের দায়িত্ব নিতে বিয়ের আগে আপনি থ্যালাসেমিয়ার বাহক কি না তা রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে জেনে নিন। তিনি আরো বলেন-একজন সুস্থ্য মানুষ ৩ মাস পর পর রক্ত দানে সক্ষম। সকলকে রক্ত দানে উদ্বুদ্ধ করে “ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে, রক্ত দিবো মিলেমিশে” এই স্লোগানের সাথে তাল মিলিয়ে সকলকে গ্রুপ নির্ণয় করতে এবং অনাগত শিশুকে সুস্থ্যভাবে বাঁচিয়ে রাখতে থ্যালাসেমিয়া রোগের বাহক কিনা সেটা জেনে বিয়ে করতে আহ্বান জানান।