মালয়েশিয়ায় নতুন রাজা নির্বাচনে ‘কাউন্সিল অব রুলারস’ এর বৈঠক

মালয়েশিয়ায় নতুন রাজা নির্বাচিত করার দিন-ক্ষণ নির্ধারণে বৈঠক করেছে দেশটির বিভিন্ন প্রদেশের রাজ পরিবারের প্রতিনিধিরা। সুলতান মোহাম্মদ পঞ্চমের আকস্মিক পদত্যাগের পর নতুন রাজা নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু করেছে তারা। মালয়েশিয়ার জাতীয় বার্তা সংস্থা বারনামাকে উদ্ধৃত করে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা খবরটি জানিয়েছে। ব্রিটেনের ওয়েস্ট মিনিস্টার পার্লামেন্টারি সিস্টেম ধারার সরকারব্যবস্থায় পরিচালিত মালয়েশিয়ায় রয়েছে প্রতীকী রাজতন্ত্র। ১৯৫৬ সালে ব্রিটিশ উপনিবেশের কবলমুক্ত হওয়ার পর দেশটির রাজ্যগুলোর অস্তিত্ব বিলোপ করে ৯ মালয় রাজ্যের রাজার সমন্বয়ে গঠন করা হয় ‘কাউন্সিল অব রুলারস’। এই কাউন্সিলের সদস্যরাই নিজেদের ভোটে পর্যায়ক্রমে এক একজনকে রাজা নির্বাচিত করেন। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে পাঁচ মেয়াদের জন্য উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় মালয় রাজ্য কেলানতানের শাসক সুলতান মোহাম্মদ পঞ্চম দেশটির ১৫তম রাজা নির্বাচিত হন। সম্প্রতি চিকিৎসা ছুটি নিয়ে রাশিয়ায় গিয়ে ৪৯ বছর বয়সী এই রাজা বিয়ে করেছেন বলে গুঞ্জন শুরু হয়। গত রোববার আকস্মিকভাবে পদত্যাগ করে সুলতান পঞ্চম মোহাম্মদ। বারনামার প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, নতুন রাজা নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণের জন্য গতকাল সোমবার মালয়েশিয়ার ৯ প্রদেশের ৬ শাসক জাতীয় প্রাসাদে বৈঠক করেছেন। অপর তিন শাসক কেন উপস্থিত হননি তা জানা যায়নি। সিংহাসন শূন্য হওয়ার পর চার সপ্তাহের মধ্যে ভোটাভুটির বাধ্যবাধকতা রয়েছে। নিজের বিয়ে বিষয়ে প্রকাশ্যে কোনও মন্তব্য করেননি সুলতান। নীরব থাকে রাজপ্রাসাদও। ‘কাউন্সিল অব রুলারস’ এর তরফ থেকেও এই বিষয়ে নীরবতা বজায় রাখা হয়েছে। ১৯৮১-২০০৩ পর্যন্ত টানা ২১ বছর মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন মাহাথির। ওই সময়ে মাহাথিরের অন্যতম বিরোধীতাকারী ছিলেন সুলতান মোহাম্মদ। ১৯৮১-২০০৩ সময়কালে মালয়েশিয়ার প্রাদেশিক শাসকদের ক্ষমতা খর্ব করেন মাহাথির। ১৯৮৩ সালে নতুন প্রনয়ন করা আইনে ‘কাউন্সিল অব কিংস’এর ভেটো দেওয়া ও অনুমতি প্রত্যাহারের ক্ষমতা বাতিলের উদ্যোগ নেন। ওই সময়েই ওই কাউন্সিলের রাজাদের সঙ্গে প্রথম তিনি বড় ধরনের মতবিরোধে জড়ান। এক দশক পর তাদের ক্ষমতা আরও খর্ব করেন মাহাথির। সে সময়ে বাতিল করা হয় ভ্রমণের সময়ে অনৈতিক আচরণের অভিযোগ থেকে রাজাদের দায়মুক্তির আইন। ২ জানুয়ারি ‘আইনের শাসন’ শিরোনামে লেখা লেখা এক ব্লগ পোস্টে মাহাথির বলেন, রাজারা আইনের উর্ধ্বে নন। তিনি লেখেন,‘রাজা থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রী,মন্ত্রী পর্যন্ত,সরকারি চাকরিজীবী থেকে শুরু করে সাধারণ নাগরিক সবার জন্যই আইন সমান। আইনে এমন কোনও বিধান নেই যে কেউ আইনের শাসনের বাইরে থাকেব। রাজাদের জন্য একটি বিশেষ আদালত রয়েছে কিন্তু সেই আদালতেও সাধারণ নাগরিকদের জন্য প্রযোজ্য আইন মোতাবেক বিচার হয়। রাজাদেরও অবশ্যই আইন মানতে হবে। আইনের আইনের ভয়ানক লঙ্ঘন ঘটিয়ে পার পেয়ে যাওয়া যাবে এই ভুল বিশ্বাসে কাউকে অন্যায় করতে দেখা খুবই বিরক্তিকর’। মাহাথিরের পোস্টের পর শুক্রবার স্থানীয় ইংরেজি দৈনিক দ্য নিউ স্ট্রেইট টাইমস জানায় বুধবার রাতে বিরল ও অনির্ধারিত একটি বৈঠক করেছে কিংস অব কাউন্সিল।ওই বৈঠকে রাজতন্ত্র বিষয়ক একটি গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হয়েছে বলে সূত্র উদ্ধৃত করে পত্রিকাটি জানালেও তা সুলতান মোহাম্মদ সংশ্লিষ্ট কিনা তা জানানো হয়নি। এরপর রবিবারেই মালয়েশিয়ার রাজপ্রাসাদ থেকে তার পদত্যাগের ঘোষণা দেওয়া হয়।