চীনে আটক ১৩ কানাডীয়

4

হুয়াওয়ের সিএফও মেং ওয়ানঝু কানাডায় আটক হওয়ার পর থেকে চীন ১৩ কানাডীয় নাগরিককে আটক করেছে। কানাডার সরকারের ভাষ্য, হুয়াওয়ের সিএফওকে আটকের সঙ্গে তাদের নাগরিকদের চীনে গ্রেফতার হওয়ার কোনও যোগসূত্র দেখছে না তারা। কিন্তু সংশ্লিষ্ট ক‚টনীতিকরা বলেছেন, ওয়ানঝুর গ্রেফতারের পাল্টা প্রতিক্রিয়া হিসেবেই চীন কানাডার নাগরিকদের আটক করছে। যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান লিখেছে, ১ ডিসেম্বর ওয়ানঝুকে গ্রেফতারের পর থেকে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে কানাডা ও চীনের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক। সিএফও মেং ওয়ানঝু হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতার মেয়ে এবং তার উত্তরাধিকারী। তাকে গত পয়লা ডিসেম্বর গ্রেফতার করা হয় কানাডা থেকে। হুয়াওয়ের পণ্যে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে গোয়েন্দা নজরদারি করার ব্যবস্থা আছে এমন আশঙ্কার কথা তো আগেই জানানো হয়েছিল, আর এবার ইরানের বিরুদ্ধে থাকা মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গ করে আর্থিক লেনদেনের প্রকল্প তৈরিতে যুক্ত থাকার অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছে হুয়াওয়ে। তাই তাকে যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধে গ্রেফতার করেছে কানাডা। সেখান থেকে তাকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রত্যর্পণ করার কথা। চীন মেং ওয়ানঝুর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগকে ভিত্তিহীন আখ্যা দিয়ে তার মুক্তি দাবি করেছে। তারা বলেছে, ওয়ানঝু মুক্তি না পেলে এর জন্য কানাডাকে চরম মূল্য দিতে হবে। ওয়ানঝুকে জামিন দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তার পায়ে পরানো রয়েছে বিশেষ বেল্ট, যাতে তিনি কোথায় যাচ্ছেন তা নজরদারি করা যায়। রাত ১১তা থেকে ভোর ছয়টা পর্যন্ত তার বাইরে বের হওয়া নিষেধ। কানাডা গত বৃহস্পতিবার এক বিবৃতি বলেছে, ওয়ানঝুকে আটকের পর থেকে চীন অন্তত তাদের ১৩ নাগরিককে আটক করেছে। তবে কানাডার পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট নাগরিকদের বিস্তারিত পরিচয় দেওয়া হয়নি। এমনকি তাদের বিরুদ্ধে আদৌ আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও অভিযোগ আনা হয়েছে কি না এবং আনা হয়ে থাকলে সেগুলো কী কী, তা জানায়নি। কানাডার একজন সরকারি কর্মকর্তা জানিয়েছেন, কানাডার যেসব নাগরিককে চীন আটক করেছে তাদের মধ্যে রয়েছেন, মাইকেল কোভরিগ, নাইকেল স্পাভোর এবং সারাহ ম্যাকিভার। ম্যাকিভার একজন শিক্ষক। তাকে আটক করা হলেও পরে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। এখন তিনি কানাডায়। কিন্তু অপর দুইজন রয়েছেন চীনের কারাগারে। আটকের পর মাত্র একবার দূতাবাসের কর্মকর্তারা তাদের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পেয়েছেন। কোভরিগ সাবেক কানাডীয় ক‚টনীতিক এবং স্পাভোর ব্যবসায়ী। কানাডা সরকারের সংশ্লিষ্ট ওই কর্মকর্তা বলেছেন, বিভিন্ন কারণে চীনে প্রায় ২০০ কাঁদাইয় আটক রয়েছে। এই সগখ্যা মোটামুটি স্থিতিশীল। একইভাবে যুক্তরাষ্ট্রেও বিভিন্ন কারণে প্রায় ৯০০ কানাডীয় আটক রয়েছে।