ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড নিউক্যাসলকে হারিয়ে জয়ের ধারায়

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে পয়েন্ট তালিকার নিচের দিকের দল নিউক্যাসল ইউনাইটেডের বিপক্ষে ভালোই লড়াই করতে হলো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে। তবে দ্বিতীয়ার্ধের দুই গোলে নতুন বছরের শুরুটা বেশ হলো প্রতিযোগিতার সফলতম ক্লাবটির। প্রতিপক্ষের মাঠে বুধবার রাতে ২-০ গোলে জেতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ব্যর্থতার দায়ে চাকরি হারানো জোসে মরিনিয়োর জায়গায় দায়িত্ব পাওয়া কোচ উলে গুনার সুলশারের অধীনে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের দলটির এটা টানা চতুর্থ জয়। নরওয়ের এই কোচের অধীনে টানা তিন ম্যাচ জিতে বছর শেষ করা রেড ডেভিলরা নিউক্যাসলের বিপক্ষেও শুরু থেকে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে থাকে। গত তিন ম্যাচে প্রতিপক্ষের জালে ১২ বার বল পাঠানো ম্যানচেস্টার প্রথমার্ধে অধিকাংশ সময় বল দখলে রেখে মোট সাতটি শট নেয় যার তিনটি ছিল লক্ষ্যে; কিন্তু স্বাগতিকদের জমাট রক্ষণে সুবিধা করতে পারেনি পল পগবা-অঁতনি মার্সিয়ালরা।
দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে উল্টো অতিথিদের রক্ষণে কয়েক বার ভীতি ছড়ায় নিউক্যাসল। এরই মাঝে ৬৩তম মিনিটে ফরাসি ফরোয়ার্ড মার্সিয়ালকে বসিয়ে রোমেলু লুকাকুকে নামান ম্যানচেস্টার কোচ। মাঠে নামার ৩৮ সেকেন্ডের মাথায় আস্থার প্রতিদান দেন বেলজিয়ামের স্ট্রাইকার।
মার্কাস র‌্যাশফোর্ডের সোজাসুজি ফ্রি-কিক ধরতে গিয়ে তালগোল পাকান গোলরক্ষক। ছুটে এসে আলগা বল সহজেই ঠিকানায় পাঠান লুকাকু। বলে এটাই ছিল তার প্রথম ছোঁয়া। ৮০তম মিনিটে ব্যবধান বাড়িয়ে জয় প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেন র‌্যাশফোর্ড। আলেক্সিস সানচেজের পাস ডি-বক্সে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ঠান্ডা মাথায় প্লেসিং শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন ইংলিশ এই ফরোয়ার্ড। ২১ ম্যাচে ১১ জয় ও পাঁচ ড্রয়ে ৩৮ পয়েন্ট নিয়ে ষষ্ঠ স্থানে আছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।  ২০ ম্যাচে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে লিভারপুল। মঙ্গলবার রাতে কার্ডিফ সিটিকে ৩-০ গোলে হারানো টটেনহ্যাম হটস্পার ২১ ম্যাচে ৪৮ পয়েন্ট নিয়ে আছে দ্বিতীয় স্থানে। তৃতীয় স্থানে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির পয়েন্ট ২০ ম্যাচে ৪৭। বুধবারের আরেক ম্যাচে সাউথ্যাম্পটনের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করা চেলসি ২১ ম্যাচে ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে আছে। শনিবার ফুলহ্যামকে ৪-১ গোলে হারানো আর্সেনাল ৩ পয়েন্ট কম নিয়ে আছে পঞ্চম স্থানে।