৫জি’র যুগ শুরু হচ্ছে যেভাবে

ক্রমেই দ্রুত গতির ইন্টারনেট সেবা ৫জি’র দিকে এগোচ্ছে বিশ্ব। বেশ কিছু দারুণ ও ভবিষ্যত প্রজন্মের প্রযুক্তির দ্বার খুলবে এই ৫জি। ৫জি’র বর্তমান অবস্থা বিশ্বজুড়ে ৫জি নিয়ে কাজ শুরু হলেও ইতোমধ্যে ৫জি সেবা চালু করেছে এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা হাতেগোনা কয়েকটি। চলতি মাসেই যুক্তরাষ্ট্রে ৫জি হটস্পট সেবা চালু করেছে দেশটির মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান এটিঅ্যান্ডটি।
প্রতিষ্ঠানটির দাবি, সেকেন্ডে ৪০০ মেগাবিট গতির ইন্টারনেট সংযোগ দেবে তাদের ৫জি, যা বেশিরভাগ বাড়ির ব্রন্ডব্যান্ড সংযোগের চেয়ে অনেক দ্রুতগতির। এ ছাড়া নেটওয়ার্কের অবস্থার ওপর নির্ভর করে ৪জি’র চেয়ে ১০ থেকে ১০০ গুণ গতি পাওয়া যাবে নতুন ৫জিতে।
এটিঅ্যান্ডটি’র হটস্পটগুলো বায়ুতরঙ্গকে ওয়াই-ফাইয়ে রূপান্তরিত করবে। এতে পিসি, ফোন এবং অন্যান্য ইন্টারনেট সংযুক্ত গ্যাজেট এটিঅ্যান্ডটি’র দ্রুতগতির ৫জিতে যুক্ত করা যাবে বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে সিএনএন। চলতি বছরের শুরুতেই ৫জি চালু করেছে যুক্তরাষ্ট্রের আরেক মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ভেরাইজন। প্রতিষ্ঠানের ৫জি হোম ডিভাইস বাড়ির ব্রডব্যান্ড রাউটার হিসেবে কাজ করে। ভেরাইজনের ৫জি সিগনাল ধরে তা ওয়াই-ফাইয়ে রূপান্তরিত করে ডিভাইসটি। ৫জি সেবা পেতে হলে শুধু নেটওয়ার্ক থাকলেই চলবে না এই সংযোগ সমর্থন করে এমন ডিভাইসও দরকার। ৫জি সমর্থনকারী স্মার্টফোন আনতে ইতোমধ্যেই কাজ শুরু করেছে স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো। ভেরাইজন এবং এটিঅ্যান্ডটি’র পক্ষ থেকে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে ২০১৯ সালের প্রথমার্ধে ৫জি সমর্থন করে এমন একটি স্যামসাং ফোন আনা হবে। ভেরাইজন জানায়, মটোরলা জেড৩-এর জন্য একটি মডিউলার ডিভাইস আনা হবে। এটি স্মার্টফোনটিতে ৫জি সমর্থন দেবে। তবে, এই ডিভাইসটিও আনা হবে সামনের বছর।

৫জি’র সীমাবদ্ধতা
প্রাথমিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের ১২টি শহরে ৫জি সেবা চালু করেছে এটিঅ্যান্ডটি। এর মধ্যেও রয়েছে কিছু সীমাবদ্ধতা। প্রতিষ্ঠানের ‘নেটগিয়ার নাইটহক’ ৫জি হটস্পট এটিঅ্যান্ডটি’র ৫জি প্রযুক্তির শুধু একটি অংশে কাজ করবে। একে বলা হচ্ছে ‘মিলিমিটার তরঙ্গ’। অত্যন্ত বেশি কম্পাঙ্কের এই বায়ুতরঙ্গ দ্রুতগতির ইন্টারনেট সেবা দিলেও খুব কম দূরত্বে পৌঁছাতে পারে এবং দেয়াল পেরোতে পারেনা ভালো মতো। ফলে ঘরের ভেতরে থাকলে এটি তেমন ভালো সংযোগ দেয়না।
এ কারণে প্রথম দিকে বাড়ির ছাদে, ল্যাম্প পোস্ট এবং অন্যান্য উঁচু পোলে ৫জি রেডিও স্থাপন করেছে এটিঅ্যান্ডটি। সামনের বছর আরও বিস্তৃত ৫জি রেডিও বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে সিএনএন-এর প্রতিবেদনে।
৫জি প্রযুক্তির সীমাবদ্ধতা রয়েছে গ্রাহকের দিকেও। বর্তমানে এই সেবা চালু রয়েছে নির্দিষ্ট গ্রাহকদের জন্য। গ্রাহক এটিঅ্যান্ডটি স্টোর থেকে নাইটহক কিনতে পারবেন কিন্তু তার বাসস্থান বা অফিস হতে হবে ৫ জি নেটওয়ার্ক রয়েছে এমন জায়গাগুলোতে। একটি নাইটহকের দাম পড়বে ৪৯৯ মার্কিন ডলার। আর মাসিক চার্জ দিতে হবে ৭০ ডলার।
অন্যদিকে ভেরাইজনের ৫জি সেবা চালু করা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের শুধু চারটি শহরে। আর ৫জি ডিভাইসের ক্ষেত্রে ভেরাইজনের সীমাবদ্ধতা এটিঅ্যান্ডটি’র মতোই।
ধীর ধীরে ৫জি প্রযুক্তি আনার বিষয়টি ইচ্ছাকৃত জানিয়ে এটিঅ্যান্ডটি’র প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা অ্যান্ড্রে ফুয়েশ বলেন, “যেকোনো নতুন প্রযুক্তি যা ৫জি’র মতো বর্ধনশীল, আপনাকে কোনো এক জায়গা থেকে শুরু করতে হবে। যখন ৪জি এবং ৩জি নতুন ছিল তখন এটিও ধীরে ধীরে চালু করা হচ্ছিল এবং দেখা হচ্ছিল এটি কেমন কার্যকর, আর এতে গ্রাহকের প্রতিক্রিয়া কেমন।”

৫জি নিয়ে যতো সম্ভাবনা
২০২০ সালের মধ্যে পুরো যুক্তরাষ্ট্রে ৫জি সেবা চালুর পরিকল্পনা রয়েছে এটিঅ্যান্ডটি এবং ভেরাইজনের, একই ধরনের পরিকল্পনা রয়েছে টি-মোবাইল এবং স্প্রিন্টের।
৫জি’র বিলম্ব কম হওয়ায় এটি স্বচালিত গাড়ির ডেটাগুলো চোখের পলকে প্রক্রিয়াজাত করতে পারবে। এ ছাড়া ক্লাউড সার্ভার হিসেবেও কাজ করবে এটি। এটি না হলে স্বচালিত গাড়ির নিজস্ব স্টোরেজেই করতে হতো। ফলে গাড়ির অনেক স্টোরেজ ও ক্ষমতা বাঁচাবে ৫জি।
অন্যদিকে স্বাস্থ্য সেবা খাতের ধারণা ৫জি প্রযুক্তি পরবর্তী প্রজন্মের টেলিমেডিসিন এবং রোবোটিক সার্জারির জন্য সহায়ক হবে।
শুধু যুক্তরাষ্ট্রই নয় বিশ্বের অনেক দেশই এখন কাজ করছে ৫জি প্রযুক্তি নিয়ে।

SHARE