বারমাসী আম বিক্রি করে সিরাজুলের আয় ৪ লাখ টাকা

গত মৌসুমে আম ব্যবসা চাষী ও ব্যবসায়িরা যখন লোকসান গুণেছেন, তখন চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বোয়ালিয়া গ্রামের চাষি সিরাজুল ইসলাম তার একবিঘা জমির ৪ বছর বয়সী গাছের বারমাসী আম বিক্রি করে এবার আয় করছেন প্রায় ৪ লাখ টাকা। গত বছর তিনি এ বাগান থেকে বিক্রি করেন ১ লাখ টাকার আম।
আম চাষি সিরাজুল ইসলাম জানান, বছরে একাধিক বার ফল ধরলেও তিনি ডিসেম্বরে সংগ্রহযোগ্য ফল রেখে বাকীটা ছিঁড়ে ফেলেন। ফল তোলার পরে আঙ্গুরের মতো একটা হেবি প্রুনিং এবং ডিবলিং মেথডে বাগানে সার ব্যবহার করেন। তার বাগানে আম গাছের দুরত্ব ৭ ফুট বাই ১০ ফুট।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উ-পরিচালক মঞ্জরুল হুদা জানান, এক বিঘা জমিতে কৃষক বছরে ৩টি ফসল করেও ৩০ হাজার টাকার বেশি আয় করতে পারে না। অথছ এই ডিসেম্বর মাসে টার বিঘার বাগানে আম বিক্রি করে প্রতিবিঘায় ১ লাখ টাকা পাওয়া একটি বিশাল ব্যাপার। চাষি সিরাজুলের এ আম বাগান চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসীকে আম চাষে নতুন করে স্বপ্ন দেখাচ্ছে বলে মনে করেন এ কৃষি কর্মকর্তা।