আমরা সবাই এ সমাজের সমান অংশিদার : প্রতিবন্ধী দিবসে জেলা প্রশাসক

1

সাম্য ও অভিন্ন যাত্রায় প্রতিবন্ধী মানুষের ক্ষমতায়ন-এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোমবার ২৭ তম আন্তর্জাতিক ও ২০ তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসন, সমাজসেবা অধিদফতর, জাতীয় প্রতিবন্ধী ফাউন্ডেশন ও সেচ্ছাসেবী সংস্থার উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। শিবগঞ্জেও দিবসটি পালন করা হয়। আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথর বক্তব্য জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক বলেছেন, আমরা সবাই এ সমাজের সমান অংশিদার, প্রতিবন্ধীরা এ সমাজের আলাদা কোনো অংশ নয়। প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদ :
নিজস্ব প্রতিবেদক : সকাল ৯টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রতিবন্ধী শিশুদের মাঝে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। পরে সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বর থেকে জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হকের নেতৃত্বে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি বিভিন্ন এলাকা ঘুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। র‌্যালিতে স্থানীয় সরকার শাখার উপ-পরিচালক ড. চিত্রলেখা নাজনীন, সিভিল সার্জন ডাঃ এসএফএম খায়রুল আতাতুর্ক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মাশরুবা ফেরদৌস, অতিরক্ত জেলা প্রশাসক (সাবির্ক) একেএম তাজকির-উজ-জামান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট দেবেন্দ্রনাথ উঁরাও অংশগ্রহণ করেন।
পরে জেলার প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় শারীরিক সমস্যা থাকা কোনো প্রতিবন্ধকতা নয় উল্লেখ করে জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক বলেন, যারা অন্যায় করে, বেআইনি কাজ করে তারা দ্বীনের প্রতিবন্ধী। আর আমরা বাকিরা কেউই প্রতিবন্ধী নই। তিনি বলেন-ছোট খাট কোনো সমস্যার কারণে কাজে অংশগ্রহণ না করলে দেশের উন্নয়ন হবে না। শারীরিক সমস্যা থাকতে পারে, মানসিক সমস্যা থাকতে পারে, তাই বলে হতাশ হয়ে ঘরে বসে থাকলে চলবে না, সবাইকে কাজ করতে হবে। এখন অনেক প্রতিবন্ধী নিজের এবং দেশের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। আপনারাও পারবেন। তিনি বলেন, প্রতিবন্ধীরা সমাজের বোঝা নয়, তারা আমাদের অংশ। তারাও হতে পারে দেশের সম্পদ। তাই প্রতিবন্ধীদের স্বাভাবিক মানুষের মতো অধিকার দিয়ে সু-শিক্ষিত করতে সরকার বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। তাদের মূল স্রোতধারায় সম্পৃক্ত করতে সমাজের সকল শ্রেণির মানুষকে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।
জেলা সমাজসেবা অধিদফতরের উপ-পরিচালক নূর মোহাম্মদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, জেলা প্রতিবন্ধী ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা মীর শামীম আলী, সমতা নারী উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক আকসানা খাতুন, শহিদুল ইসলাম, সংগঠক আমিনুল ইসলাম, প্রতিবন্ধী সেলিম রেজা।
জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক নূর মোহাম্মদ বলেন, সরকার প্রতিবন্ধীদের জন্য ভাতা ও শিক্ষার্থীদের জন্য উপবৃত্তি চালু করেছে। তিনি বলেন, প্রতিবন্ধী জরিপ সম্পূর্ণ হয়েছে। জেলায় আমাদের সর্বমোট প্রতিবন্ধী রয়েছে ২২,৭৮৯ জন। প্রতি মাসে ৭০০ টাকা করে ভাতা পান ১২৯৭০ জন এবং প্রাথমিক, মাধ্যমিক উচ্চম্যামিক এবং তাদের পর্যায়ে যারা উপবৃত্তি পেয়ে থাকেন এরকম উপবৃত্তিধারির সংখ্যা ৮২৭ জন। তিনি বলেন-প্রতিবন্ধীদের জন্য ক্ষুদ্র ঋণ কার্যক্রম চালু রয়েছে, কার্যক্রমে আওতাই রয়েছে ১১৪ জন।
আলোচনাসভা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। শেষে একটি প্রতিষ্ঠান, ২ জন প্রতিবন্ধীতা উত্তরণে ও সফল প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে সম্মাননা স্মারক এবং ক ও খ বিভাগে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির পক্ষ থেকে ৩০ জন চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীকে শান্তনা পুরস্কার দেওয়া হয়। এদিকে, একই অনুষ্ঠানে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মাঝে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শীতবস্ত্র হিসেবে কম্বল বিতরণ করা হয়। সৌহার্দের বন্ধন হিসেবে প্রত্যেক প্রতিবন্ধীদের হাতে জেলা প্রশাসক কম্বল তুলে দেন।


শিবগঞ্জ প্রতিনিধি : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা সমাজসেবা অফিসের যৌথ উদ্যোগে সোমবার দুপুরে শিবগঞ্জ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার চৌধুরী রওশন ইসলাম। এতে প্রধান আলোচক ছিলেন শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র কারিবুল হক রাজিন। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. বরমান হোসেন, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা কাঞ্চন কুমার দাস, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুস সামাদ বকুলসহ অন্যরা। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রধান শিক্ষক রবিউল হক।