বিধবা ভাতার কার্ডের জন্য স্বামী হারা লুৎফুন নেসার আকুতি

<সাহিনা আক্তার>

স্বামী প্রয়াত হয়েছেন ২০ বছর হল। কিন্তু এখনও বিধবা ভাতার কার্ড পায় নি। বাড়িবাড়ি কাজ করে সংসার চালাতে খুবই কষ্ট হয়। আমাকে কেউ যদি বিধবা ভাতার কার্ড করে দিত তাহলে ভালোমতো সংসারটা চালাতে পারতাম। এভাবেই বলছিলেন-চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার জিয়ানগর মহল্লা বাসিন্দা লুৎফন নেসা।
২০ বছর আগে তার স্বামী মৃত্যুবরণ করেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত বিধবা ভাতার কার্ড পান নি বিধবা লুৎফন নেসা। তবুও স্বামীহারা লুৎফন্নেসা এক মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে জীবনধারনের জন্য সংগ্রাম করে যাচ্ছেন। স্বামীর অকাল মৃত্যুতে ভেঙ্গে পড়েন লুৎফন নেসাসহ তার পরিবার। কখনও খেয়ে আবার কখনও না খেয়ে দিন কাটত তার। লুৎফন নেসা বলেন-বাচ্চারা তো সব নাবালক ছিল। ছেলেটা বিয়ে করে সংসারী হয়েছে। পেশায় সে রিকশা চালক। অন্যদিকে মেয়েটারও বিয়ে হয়ে গেছে। নিজস্ব জমি জায়গা নেই। বাড়িঘরও নড়বড়ে। রাতে বারান্দায় ঘুমাতে হয়।
ছেলের রিকশা চালানোর আয় দিয়ে ভালোভাবে সংসার চালানো কঠিন হয়ে পড়ে। তাই বিধবা লুৎফুন নেসাকে মানুষের বাড়িতে কাজ কাম করে সংসারটা চালিয়ে নিতে হচ্ছে কষ্টে। লুৎফুন নেসা বলেন-আমার খুব অসুবিধা হয়। আমার তো স্বামী মারা গেছে। অথচ আমাকে কেউ কোনদিন সাহায্য করে না। সবাই ভাতার কার্ড পায়, চাল পায় আমি কোনদিন কিছুই পায় না।
লুৎফন নেসা বিভিন্ন জায়গায় কাজ করে সংসার চালাচ্ছেন। তবে কাজ করে যে টাকা আয় হয়, তা দিয়ে সংসার চালানো কঠিন হয়ে যায় তার। লুৎফন নেসার মতো সমাজে অনেক নারী আছেন যারা স্বামী হারিয়ে জীবন ধারনের জন্য সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছেন। এই বিধবা নারীদের জন্য সরকার চালু করেছে বিধবা ভাতা। তবে ২০বছর পার হলেও এখনো পান না বিধবা ভাতা লুৎফন নেসা। তিনি আশায় রয়েছেন হয়তো কেউ তাকে করে দিবেন বিধবা কার্ড। যা দিয়ে ছেলেমেয়েকে নিয়ে কিছুটা সুখে থাকতে পারবেন। তিনি বলেন-আমি অনেক জায়গাতে শুনি যে যার স্বামী নেই তাকে বিধবা ভাতার কার্ড করে দেয় । কিন্তু আমার তো স্বামী নেই, তাহলে আমি কেন পায় না ? আমাকে যদি কেউ একটি বিধবা ভাতার কার্ড করে দিত তাহলে আমার খুব ভাল হতো, ছেলে মেয়েকে নিয়ে একটু শান্তিতে খেতাম, বাড়িঘরটা একটু ঠিক করতাম।
এ বিষয়ে সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক তৌহিদুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি জানান, যারা এখনো বিধবা ভাতার কার্ড পায় নি, আমরা চেষ্টা করছি তাদের তালিকা ধরে সামনে দেবার। তিনি বলেন-বিধবা ভাতার কার্ড পেতে হলে বয়স লাগে না, বিদবা হলেই পাবেন। বিধবা ভাতার পরিমান মাসিক ৫০০ টাকা। কার্ডধারী যতদিন বেঁচে থাকবেন ততদিন টাকা পাবেন।

ফেলো, রেডিও মহানন্দা ৯৮.৮ এফ.এম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

SHARE