চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে সংবর্ধনা

প্রাথমিক শিক্ষায় বিশেষ অবদান রাখায় জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা পদক ২০১৮ এ রাজশাহী বিভাগে শ্রেষ্ঠ উপজেলা নির্বাহী অফিসার নির্বাচিত হওয়ায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আলমগীর হোসেনকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। উপজেলা বিআরডিবি মিলনায়তনে বৃহস্পতিবার সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে এ সংবর্ধনা প্রদান করে।
সদর উপজেলায় যোগদানের পর থেকে নির্বাহী অফিসার মো. আলমগীর হোসেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষার উন্নয়নসহ বিভিন্ন বিষয়ে উন্নয়ন ও সহযোগিতার বিষয় তুলে ধরে বক্তব্য দেন, মুক্তিযোদ্ধা মো. খাইরুল ইসলাম, সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নাজমা বেগম, সদর উপজেলার সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মাসুদ রানা, উপজেলা প্রকৌশলী আ.ন.ম. ওয়াহিদুজ্জামান, সদর উপজেলা কৃষি অফিসার মো. জাহাঙ্গীর আলম. কামাল উদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খালেদা বেগম, ঝিলিম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তসিকুল ইসলাম।
এসময় সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখলেসুর রহমান, সদর থানার ওসি (তদন্দ) আতিকুল ইসলামসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, অফিস প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন। শেষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আলমগীর হোসেনের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন অতিথিরা। বক্তারা বলেন-রাজশাহী বিভাগে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলাকে বড় সম্মানের স্থানে তুলে ধরেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আলমগীর হোসেন। তারা তাঁর দীর্ঘায়ু কামনা করেন এবং আগামী দিনে আরও সফলতা অর্জন করে সমাজ ও দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আলমগীর হোসেন উপজেলার সকল বিভাগের কর্মকর্তাদের আন্তরিক সহযোগিতায় উপজেলার উন্নয়নে ভূমিকা রাখা এবং এর মূল্যায়ন হওয়ায় সকলের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ও আগামীতে উপজেলার উন্নয়নে সকলের আন্তরিক সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করেন।
উল্লেখ্য, রাজশাহী বিভাগে মোট ৬৭ জন উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষায় বিশেষ করে প্রাথমিক শিক্ষা, সৃজনশীলতা বিকাশ ও ঝরেপড়া শিক্ষার্থীদের হার কমানোই অবদান রাখায় শ্রেষ্ঠ উপজেলা নির্বাহী অফিসার নির্বাচিত হন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আলমগীর হোসেন। গত ১ অক্টোবর রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে এই ফলাফল জানানো হয়। তিনি ২০১৭ সালের ৪ অক্টোবর চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে যোগদান করেন এবং সদর উপজেলার শিক্ষাসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।