সড়ক দুর্ঘটনা রোধে মাঠে পুলিশ

-সম্পাদকীয়-


চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরে শনিবার থেকে অবৈধ যানবাহন বন্ধে এবং সড়ক দুর্ঘটনা রোধে মাঠে নেমেছে পুলিশ ও পৌরসভা। পৌরসভার অটোরিকশা ও পৌরসভার বাইরের অটোরিকশা সহজে শনাক্ত এবং অটোরিকশার মালিকের সাথে যোগাযোগ করার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ফিটনেস বিহীন গাড়ি ও বৈধ লাইসেন্স ছাড়া কোনো গাড়ি রাস্তা না না বের করতে আহবান জানানো হয়েছে।

শহরের ৪ টি পয়েন্টে পুলিশ চেকপোস্ট বসিয়ে অবৈধ যানবাহন যেন শহরে ঢুকতে এবং রাস্তায় চলতে না পারে সে জন্য পলিশের এ ব্যবস্থা নিয়েছে। পৌরসভার অটোরিকশার গায়ে হলুদ রং করা শুরু হয়েছে। ৪ টি পয়েন্ট হচ্ছে, শহরের বিশ্বরোড, বীর শ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতু এলাকা, নয়াগোলা মোড় ও শান্তি মোড়।
পৌরসভা চত্বরে সার্জেন্ট আব্দুল আলিম অটোরিকশাতে রং এবং মালিকদের মোবাইল নম্বর লিখছে কিনা তা মনিটরিং করছেন। যেসব অটোরিকশা এ বিষয়ে জানে না তাদের নিয়ম জানানো এবং বোঝানো হচ্ছে। পুলিশ ও ট্রাফিক সার্জেন্টকে সকাল থেকে মাঠে এ কাজ করতে দেখা গেছে।
পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম (বিপিএম) দৈনিক গৌড় বাংলাকে জানান, সড়কে মানুষের চলাচলে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। পৌরসভা ও পুলিশের বিশেষ টিম সড়কে অবৈধ যানবাহন চলাচল বন্ধ এবং অটোরিকশা চলাচল নিয়ন্ত্রণে ৪ টি পয়েন্টে চেক পোস্টে কাজ করবে। পুলিশ সুপার আরও জানান, একার পক্ষে কোন কিছু করা যায় না, সফলতা আসে না। আমিও একা কিছু করতে পারব না। সকলের সহযোগিতায় আমরা চেষ্টা করব আপনাদের জান মালের নিরাপত্তা দিতে। সে লক্ষেই আজ থেকে অবৈধ অটোরিকশা ও যাবাহন চলাচলে নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। নিয়ন্ত্রণ করা হবে যে কোনো বেপরোয়া যানবাহন ও চালক। যানহানের ফিটনেস, বৈধ লাইসেন্সসহ সব কিছুই দেখা হবে।
তিনি আরো জানান, পৌর সভার সকল অটোরিকশা চালক পৌরসভার সীমানার ভেতরেই অটোরিকশা চালাবে। অন্যদিকে পৌর সভার সীমানার বাইরের কোনো অটোরিকশা পৌর সভার ভেতরে আসবে না।
টি এম মোজাহিদুল ইসলাম আরও জানান, প্রতিটি অটোরিকশাতে মালিকের মোবাইল নম্বর লিখে রাখতে হবে। যেন তার মালিকের সাথে যে কেউ সহজে যোগাযোগ করতে পারে। এ ছাড়াও অটোরিকশার বডিতে বিশেষ রং করা হবে। যেন যে কেউ সহজে বুঝতে পারে কোনটা পৌরসভা এলাকার আর কোনটা পৌরসভার বাইরের।
পুলিশ সুপার মোজাহিদুল আরও জানান, আমি যানবাহন চালকদের অনুরোধ করব আপনারা ফিটনেস বিহিন গাড়ি চালাবেন না। সঠিক ভাবে রাস্তায় চলাচলে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করুন। মোট কথা সঠিক ভাবে রাস্তায় চলাচলের জন্য সবদিক থেকে প্রস্তুতি না নিয়ে রাস্তায় যানবাহন চালানো থেকে বিরত থাকুন।
তিনি আরও বলেন, সাধারণ মানুষ বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের বলব, আপনারা রাস্তায় সজাগ হয়ে চলাচল করবেন। রাস্তায় কেউ বিশৃঙ্খলা বা নিয়ম অমান্য করলে তাদের বোঝান, সচেতন হতে আহবান জানান। শহরে সকলে ট্রাফিক নিয়ম মেনে চলাচল করুন। মনে রাখবেন দশে মিলি করি কাজ, হারিজিতি নাহি লাজ। জনগণের জানমালের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ সর্বদা প্রস্তুত রয়েছে বলেও জানান পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম। কাজেই আমাদের সকরকে বেশি বেশি সচেতন হতে হবে। বোঝাতে হবে সাধারণ মানুষকে ট্রাফিক আইন সম্পর্কে। সকলে মিলেমিশে কাজ করলেই আমরা সুন্দর ও শৃঙ্খলাভাবে রাস্তায় চলতে পারব।

SHARE