আফগানদের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের লক্ষ্য সাকিবের

আইপিএল খেলে সোমবার ভারত থেকে দেশে আসার পর দুইদিন বিশ্রাম নেন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। এরপর আবার বৃহস্পতিবার ভারতের দেরাদুনে যান। বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের মধ্যকার তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজ যে দেরাদুনেই হবে। তিনিই যে সিরিজে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক। সিরিজ খেলতে যাওয়ার আগে সিরিজ জেতার টার্গেটের কথাই বলে গেলেন সাকিব। শুধু সাকিব নন, বৃহস্পতিবার সাকিবের সঙ্গে দেরাদুন গেছেন বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নুও। তিনিও সিরিজ জেতার আশাবাদের কথাই জানিয়েছেন। সাকিব বলেছেন, ‘আমাদের টার্গেট ওটা (সিরিজ জেতা) থাকবে। আমরা চেষ্টা করব ম্যাচ বাই ম্যাচ খেলার। প্রথম ম্যাচটি গুরুত্বপূর্ণ। যদি আমরা ভাল শুরু করতে পারি তাহলে মোমেন্টামটা আমাদের দিকে থাকবে। তখন দুই ম্যাচ আমাদের জন্য খুব সহজ হয়ে যাবে।’আফগানদের বিপক্ষে প্রথম টি২০ দিয়ে রবিবার সিরিজ শুরু হবে। এরপর ৫ ও ৭ জুন যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় টি২০ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। সাকিব শুরুতেই জিতে সিরিজে এগিয়ে থাকতে চান। তাহলে সামনের পথ যে সহজ হবে। তবে এ পথ এত সহজ নয়। আফগানিস্তান দলটিও শক্তিশালী। বিশেষ করে টি২০তে। দলটি বাংলাদেশের চেয়ে র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে। দলের ভারসাম্যও ভাল। তারুণ্য আর অভিজ্ঞতার সমন্বয় আছে। আবার টি২০তে বাংলাদেশের সেরা পেসার মুস্তাফিজুর রহমানও নেই। আইপিএল খেলে পায়ের চোট বহন করে দেশে এসেছেন। শেষ মুহূর্তে দল থেকে ছিটকে পড়েছেন মুস্তাফিজ। তাতে দলও যে সমস্যায় তা সাকিবই স্বীকার করেছেন। বলেছেন, ‘স্বাভাবিকভাবে একটু সমস্যা হবে। আমাদের দলের সেরা টি২০ বোলার (মুস্তাফিজ)। স্বাভাবিকভাবেই আমাদের জন্য একটু ডিফিকাল্ট। এটা কিন্তু আরেকটা সুযোগ অন্য বোলারদের, অন্য আরেকজন খেলোয়াড়ের। যার জন্য সুযোগটি হবে সে যেন ভালভাবে কাজে লাগাতে পারে, সেটাও তারজন্য বড় সুযোগ বলে আমি মনে করি।’ সাকিব মূলত আবুল হাসান রাজুর দিকেই ইঙ্গিত করলেন। তিনিই যে মুস্তাফিজের পরিবর্তে দেরাদুনে দলের সঙ্গে শুক্রবার যোগ দেবেন। শুধু সাকিব নন, মুস্তাফিজ না থাকায় যে দলের সমস্যা হতে পারে সেই ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধান নির্বাচকও। বৃহস্পতিবার দেরাদুন যাওয়ার আগে মুস্তাফিজ প্রসঙ্গ আসতেই প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘অবশ্যই ওকে (মুস্তাফিজ) মিস করব। ও আমাদের রেগুলার বোলার শর্টার ফরমেটে। মাত্রই আইপিএল খেলে এসেছিল। ওখানকার অভিজ্ঞতা কিছুটা হলেও কাজে লাগাতে পারত। সেটা মিস করব। তারপরও আমাদের খেলোয়াড়রা ভাল অবস্থানে আছে। আমরা গতকাল (বুধবার) ওখানে অনুশীলনও করেছি। আশাকরি আমরা এ সিরিজটা ভাল করব। মুস্তাফিজের শেষ ম্যাচে ইনজুরি হয়েছে। এরপর মুম্বাইয়ের ফিজিও ওকে নিয়ে কোন আপডেট দেয়নি। এখানে (দেশে) আসার পর ২৬ তারিখও কিন্তু ম্যাচ খেলেছে। তারপরের দিনও কিন্তু ও কোন আপডেট দেয়নি। সেই হিসেবে যাওয়ার ঠিক আগেরদিন বলাতে একটু সমস্যা হয়ে গেছে। ইনজুরি হয়েছে এখন তো আর কিছু করার নেই। চিড় ধরা পড়েছে। তিন সপ্তাহের মধ্যে হয়তো ফিট হতে পারে।’দেরাদুনের কন্ডিশন সম্পর্কে ভালভাবেই জেনে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। প্রচ- গরম। খেলাগুলো বাংলাদেশ সময় রাত আটটায় হবে। তাতে গরম থেকে একটু হলেও বাঁচা যাবে। গরমের সঙ্গে উইকেট যে পেস বোলারদের জন্য সহায়ক হতে পারে সেই ইঙ্গিতও মিলেছে।বুধবার দেরাদুনের রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন যেমন বলেছেন, ‘মাঠের সুযোগ-সুবিধা ভাল। আউটফিল্ড ভাল। মাঝ উইকেট একটু স্লো দেখলাম। ম্যাচের দিনে মনে হয় এমন থাকবে না। শুকনো থাকলে উইকেটে বাউন্স থাকবে। পাশের দুটি উইকেটও ভাল আছে। আবহাওয়ার কথা যদি বলি, একটু বেশি গরম। দিল্লীতে আরও বেশি গরম ছিল। দিনে অনেক গরম, রাতে হয়তো এতটা থাকবে না।’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘আমরা পেশাদার দল, যে কোন মাঠেই ভাল খেলতে হবে। এখানে আমরা সিরিজ জিততে এসেছি। সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারলে সিরিজ জিততে পারব আশাকরি।’একই কথা প্রধান নির্বাচকের কণ্ঠেও বের হয়েছে। তিনি বলেছেন, ‘ওরা (টিম ম্যানেজমেন্ট) যেটা বুঝেছে, উইকেটে একটু বাউন্স থাকবে। আফগানিস্তান দলও কিন্তু ওখানে পুরোপুরি ইউজড টু না। ওখানে শুধু অনুশীলন করে যাচ্ছে। ম্যাচ খেলেনি। দিন শেষে যারা ভাল খেলবে ম্যাচ তাদের দিকেই যাবে। আমি বিশ্বাস করি শেষ টি২০ টুর্নামেন্ট নিদাহাস ট্রফিতে আমরা ভাল খেলেছি। এখানেও আমরা ভাল খেলব আশাকরি।’ মুস্তাফিজের পরিবর্তে সুযোগ পাওয়া রাজুকে নিয়ে আশাবাদী প্রধান নির্বাচক নান্নু, ‘আমরা যখন দল ঘোষণা করেছিলাম, তখনই তাকে (রাজু) স্ট্যান্ডবাই হিসেবে রাখা হয়েছিল। আমরা ওকে সঙ্গেই রেখেছি। আমাদের প্ল্যান ছিল যদি কোন ফাস্ট বোলার ইনজুরিতে পড়ে তাহলে ওকে আমরা সঙ্গে সঙ্গে রিপ্লেস করতে পারব। ও স্লোয়ারটা ভাল করতে পারে। আইপিএলে উইকেটগুলোতে দেখেছি যথেষ্ট ঘাস থাকে। সেই অবস্থা থেকে ওই বিবেচনায় ওকে আমরা নিয়েছি।’ দলে যথেষ্ট পেস বোলার আছেন। পেস বোলার হিসেবে রুবেল হোসেন, আবু জায়েদ রাহী রয়েছেন। আবার আরিফুল হক, সৌম্য সরকারও প্রয়োজনে বোলিং করতে পারবেন। পেসনির্ভর উইকেট হলে রাজুও আছেন। আশা করা হচ্ছে, দল সিরিজ জিতবে। আইপিএল খেলে দেশে ফেরার পর আফগানিস্তান দলকে ফেবারিট বলা বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিবই সেই আশার বাণী দেরাদুন যাওয়ার আগে শুনিয়েছেন।

SHARE