উন্নয়নমূলক কাজে সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা আব্দুল ওদুদ এমপির

15

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে বাস্তবায়িত ও প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত উন্নয়নমূলক ৫টি মেগা প্রকল্প বিষয়ে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন সদর আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল ওদুদ।
মতবিনিময়ে তিনি বেলেছেন-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইত:পূর্বে এ জেলায় সফরে এসে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকা পর্যন্ত সরাসরি আন্ত:নগর ট্রেন চালুর প্রতিশ্রুত দেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হচ্ছে না। প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত ১৫৯ কোটি টাকার রাবারড্যাম প্রকল্প, পর্যটন কেন্দ্র, শিশুপার্ক ও শেখ হাসিনা সেতু হতে বীর শ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতু পর্যন্ত সংযোগ সড়ক এবং এ প্রকল্পের আওতায় জেলা শহরের কামাল উদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় হতে পুরাতন জেলখানা পর্যন্ত বাইপাস রাস্তা নির্মাণে গৃহীত প্রকল্পগুলোর বর্তমান অবস্থা তুলে ধরেন তিনি। তিনি জানান, মহানন্দা নদীতে ১৫৯ কোটি টাকার রাবারড্যাম নির্মাণ ও ৩৭ কিলোমিটার নদীখনন প্রকল্পটি একনেকে পাস হয়েছে গত তিন মাস আগে। ইতোমধ্যে ১২ কোটি টাকা বরাদ্দও দেয়া হয়েছে। কিন্তু পানি উন্নয়ন বোর্ডের দীর্ঘসূত্রিতায় প্রকল্প পরিচালক নিয়োগে তিনমাস পার হয়ে গেছে। আব্দুল ওদুদ বলেন-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিশ্রুত প্রকল্পের মধ্যে ঢাকা থেকে সরাসরি আন্ত;নগর ট্রেন অন্যতম। এ জন্য আমনুরায় বাইপাস রেললইনও নির্মাণ করা হয়েছে। অথচ সরাসরি আন্ত:নগর ট্রেন দেওয়া হচ্ছে না। এ ছাড়াও একটি পর্যন কেন্দ্র শিশুপার্কসহ অন্যান্য প্রকল্পগুলো ঝুলে আছে। আব্দুল ওদুদ জেলার উন্নয়নের স্বার্থে এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে লিখনির মাধ্যমে সহযোগিতার করার জন্য সাংবাদিকদের প্রতি অনুরোধ জানান। এসময় তিনি সাংবাদিকদের বিবেক দিয়ে বিচার বিশ্লেষণ করে সংবাদ পরিবেশনের কথা বলেন।
এসময় তিনি জানান, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ক্ষেত্রে আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি বলেছেন, আমি আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে যোগদান করে বিএনপিদ্বারা জুলুমের শিকার হয়েছি। ২০০৮ সালে দলীয় সভাপতি আমাকে মনোনয়ন দিয়েছিলেন এবং আমি বিপুল ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হই। জনসাধারণ বিএনপির জুলম নির্যাতনের কারণে আমাকে এ ভোট দেন এবং আমি নির্বাচতি হয়ে গত বছরগুলোয় চেষ্টা করেছি সদর উপজেলার উন্নয়ন করতে। তিনি বলেন-আমি আশাবাদী আগামী নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকেই মনোয়ন দেবেন। যদি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অন্যকাউকে মনোনয়ন দেন তবে আমি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তার জন্যই কাজ করবো।
গতকাল শনিবার দুপুরে নবাবগঞ্জ ক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
এ-সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাজিবুর রহমান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, নাচোল উপজেলা চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের, সদর উপজেলা ভাইস চেযারম্যান মাওলানা সোহরাব আলী।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব মো. মনিরুজ্জামান মনির বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৫টি মেগা প্রকল্প নিয়ে নাগরিক কমিটি আন্দোলন করে আসছে এবং ওই প্রকল্পগুলো প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত। এসব প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নের মধ্যদিয়ে জেলাবাসীর দীর্ঘদিনের আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটাতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের নিকট তিনি দাবি জানান।
দশম জাতীয় সংসদের মেয়াদ শেষ হতে চলেছে এবং দিন যত গড়াচ্ছে একাদশ নির্বাচনও ঘনিয়ে আসছে। বর্তমান সরকারের আমলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় বিশেষ করে সদর উপজেলায় শেখ হাসিনা সেতুসহ বেশ কয়েকটি বৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। আড়াইশ শয্যার হাসপাতাল নির্মাণ কাজও শেষের পথে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত আরও ৫টি মেগা প্রকল্প এখনো আলোর মুখ না দেখায় আগামী নির্বাচনে এর বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে বলে মনে করছেন দলীয় নেতাকর্মীসহ জেলাবাসী। সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা মনে করেন প্রকল্পগুলো যেহেতু প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত, সেহেতু দ্রুত বাস্তবায়ন করা হলে আগামী নির্বাচনে এর ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। তাই এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।