শিবগঞ্জ উপজেলাকে বাল্যবিয়ে মুক্ত ঘোষণা : ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে থাকল শিবগঞ্জ উপজেলা স্টেডিয়াম

আমের রাজধানী উত্তর বঙ্গের প্রাচীন গৌড় নগরী চাঁপাইনবাবগঞ্জ নানা দিক থেকে সমৃদ্ধ। শুরুর পর যেমন শেষ আছে ঠিক তেমনি ভালোর পরেই রয়েছে মন্দ। তবে মানুষের কাছেই সব কিছু। আপনি যেমন কাজ করবেন তেমন ফল পাবেন-এটাই বাস্তব সত্য। যুগের সাথে পাল্লা দিয়ে উন্নতি আর আধুনিকতার ছোঁয়া আমাদের চাঁপাইনবাবগঞ্জেও লেগেছে। দিন দিন মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বড় হচ্ছে শহরের পরিধি। দিন দিন নতুন নতুন গ্রামের সৃষ্টি হচ্ছে। তবে সব কিছুর পরেও কিছু সমস্যা থেকেই যায়। এ রকম সমস্যার মধ্যে বাল্য বিবাহ একটি অন্যতম জাতীয় সমস্যা। বাল্য বিবাহের কারণে অনেক পরিবারে নেমেছে অন্ধকার।

মা হতে যেয়ে অনেক গর্ভবতি মারাও গেছে। অসেতনতার কারণে নষ্ট হয়েছে উঠতি বয়সের তরুণীরা। বাল্যবিবাহ কোন সুফল বয়ে আনে না। আনে শুধু অশান্তি আর কষ্ট। তাই আর যেন একটিও বাল্য বিয়ে না হয় সে জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জের প্রশাসন সক্রিয় রযেছে। তারই ধারাবাহিকতায় শিবগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন কর্তাব্যক্তি উপজেলা নির্ভাহী অফিসার মো. শফিকুল ইসলাম শিবগঞ্জে যোগদান করেই বাল্যবিবাগ প্রতিরোধে মাঠে নামেন এবং বেশ কিছু বর-কনে তাদের আত্মীয়স্বজনকের শাস্তিও দেন।

জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় শিবগঞ্জ উপজেলাকে শতভাগ বাল্য বিবাহমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। ঘোষণা করা হয়েছে শতভাগ স্কাউটিং উপজেলা। গত শনিবার বিকেল ৩ টায় শিবগঞ্জ স্টেডিয়াম মাঠে হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে এক জমকালো অনুষ্ঠানে এ ঘোষাণা দেওয়া হয়। উপজেলা প্রশাসন আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।

শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন সংসদ সদস্য গোলাম রাব্বানী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক এরশাদ হোসেন খান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান পিপিএম, পৌর মেয়র এ আর এম আজরী মোহা. কারিবুল হক রাজিন, সমাজ সেবা অফিসার কাঞ্চন কুমার দাস, বাংলাদেশ স্কাউটস শিবগঞ্জ উপজেলা সম্পাদক রবিউল ইসলামসসহ অন্যরা।

পরে শতভাগ স্কাইটিং, বাল্য বিবাহমুক্ত শিবগঞ্জ উপজেলা ঘোষণা এবং বাল্য বিবাহ বিরোধী শপথ বাক্য পাঠ করান মো. শফিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ঢাকার সিনিয়র সাংবাদিক আনোয়ার হক ও রেডিও মহানন্দার কথা বন্ধু রেবেকা সুলতানা ইতি। অনুষ্ঠানে হাজার হাজার নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেন এমপি মমতাজ, এন্ড্র কিশোর, কনক চাঁপা ও অপু বিশ্বাস। আজ থেকে শিবগঞ্জ উপজেলায় আর যেন একটিও বাল্যবিয়ে না হয় সেজন্য সকলকে সচেতন থাকার আহবান জানান বক্তারা।

সেদিনের সে অনুষ্ঠানে এমপি গোলাম রাব্বানী তাঁর ভাষণে বলেন, আপনাদের কাছে আমি ১টি করে নৌকা প্রতিকের জন্য ভোট চাই। গত শনিবার বিকেলে লক্ষ মানুষের মাঝে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভোট দিয়ে আবারো বিজয়ী করে দেশ চালানোর দায়িত্ব দেবার জন্য আহবান জানান এ সাংসদ। সে সাথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারো তাঁকে একাদশ জাতীয় নির্বাচনের জন্য নৌকা প্রতিক দেবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
গোলাম রাব্বানি এমপি বলেন, আমি তো আপনাদের চ্যাইল কালাই এর রুটি আর চ্যাইল কালাই এর ছাতু, ঠিক না বেঠিক। এ সময় হাজার হাজার জনতা একসুরে চিৎকার দিয়ে বলে ঠিক। তিনি আরো বলেন, হামি আপনারঘি পান্তা ভাত, গরুর গোস্ত, গরুর মাংস আর কালাই এর ড্যাইল। হামি কদমাতি থাকতে পারি। হামি আপনারঘেরি মানুষ।

এমপি গোলাম রাব্বানী আরো বলেন, আপনারা জানেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা ব্যাপক সফলতা অর্জন করেছি। তিনি বলেন, স্বল্পন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে আমরা নাম লিখিয়েছি। উন্নয়নের মহাসড়কে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং বঙ্গবন্ধুর ভাষণ বিশ্ব দরবারে ইউনেস্কো কর্তৃক ঐতিহ্য হিসেবে স্বিকৃতি পাওয়া। সর্বশেষ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সফল রাষ্ট্র নায়ক, বিপন্ন মানবতার বাতিঘর, আমার কলিজার টুকরা, প্রিয় নেত্রীর নেতৃত্বে আমরা আজকে মহাকাশ জয় করেছি।

তিনি আরো বলেন, সমুদ্র সীমা জয় করেছিলাম আজকে আমরা মহাকাশকে জয় করেছি। সকলে বলুন আলহামদুলিল্লাহ। এ অর্জন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নয়, এ অর্জন ১৬ কোটি জনগণের। এ এক বিশাল অর্জন।

যে সংস্কৃতিকে, যে গানকে, আপনারা ভালোবাসেন আমিও তেমন ভালবাসি। শেখ হাসিনা আপনাদের অনেক উপহার দিয়েছে। আমিও গোলাম রাব্বানী আপনাদের আজ এ আয়োজন উপহার দিলাম। ইংরেজিতে একটা কথা আছে ‘গিভ এ্যান্ট টেক’। কিছু দিন আর কিছু নিন। আপনারা সকলে আমাকে নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে আবারো শিবগঞ্জকে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে ভোট দিবেন।

ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে থাকল শিবগঞ্জ উপজেলার স্টেডিয়াম মাঠ

চাঁপাইনবাগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার স্টেডিয়াম মাঠে গত শনিবার লক্ষ জনতার উপস্থিতিতে শিবগঞ্জকে বাল্য বিবাহ মুক্ত ঘোষণা ও ঢাকা থেকে আগত চলচিত্র জগতের শিল্পীদের নাচগান পরিবেশনের মধ্য দিয়ে পালন করা হয়েছে। বাংলাদেশের ইতিহাসে এত বড় বাল্য বিবাহ বিরোধী শপথ হয়নি বলে বিশাল আধুনিক ও ডিজিটাল প্রজেক্টর ও ডিজিটাল বড় পন্দায় আছ¦াদিত মঞ্চে ঘোষণা দেন শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শফিকুল ইসলাম।
শফিকুল ইসলাম আরো ঘোষণা দেন যে, আজ আপনারা আরো একটি ইতিহাসের অংশ হতে যাচ্ছেন। এরপর তিনি ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোএরশাদ হোসেন খান, সংসদ সদস্য গোলাম রাব্বানী, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান, শিবগঞ্জ পৌর মেয়র এ আর এম আজরী মোহাম্মদ কারিবুল হক রাজিন, সিনিয়র সাংবাদিক আনোয়ার হকসহ স্কাউট সদস্যদের নিয়ে শপথ বাক্য পাঠ করান।
মাঠের গ্যালারীর হাজার হাজার মানুষ দাঁড়িয়ে শপথ বাক্য পাঠ করেন একযোগে। ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে থাকল শিবগঞ্জ উপজেলার স্টেডিয়াম মাঠ। মাঠে গান ও নাচ পরিবেশন করেন এ্যান্ড্রু কিশোর, এমপি মমতাজ, অপু বিশ্বাস ও কনক চাঁপা।
জেনে নিন কি আছে শপথ বাক্যে
আমরা শপথ করছি যে, বাল্য বিয়ের বিরুদ্ধে সর্বদা সোচ্চার থাকব। সরকার ও রাষ্ট্র কতৃক প্রণীত বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন যথাযথ ভাবে মেনে চলব।
আমরা নিজ পরিবারের কাউকে বাল্য বিবাহ দেব না। আমাদের সমাজে কোন বাল্য বিবাহ হতে পারবে না। যে কোন মূল্যে আমরা বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ করব। আজকের ঐতিহাসিক এ দিনে এই হোক আমাদের অঙ্গীকার।
আজ শিবগঞ্জ উপজেলাকে যে কারণে বাল্য বিবাগমুক্ত ঘোষণা করা হল তা বাস্তবায়নে আমাদের সবাইকে এক যেগে কাজ করতে হবে, তা হলেই এর সুফল পাওয়া যাবে।

–ডি এম কপোত নবী

 

SHARE