ডিজিটাল স্বাক্ষরে প্রথম বন্ধকী দলিল লন্ডনে

লাখ লাখ গৃহমালিকের সময় বাঁচাতে ও ঝামেলা কমাতে অনলাইনে ডিজিটাল বন্ধকী দলিল চালু করলো লন্ডনের ভূমি রেজিস্ট্রি কার্যালয়। ভূমি রেজিস্ট্রির এক ঘোষণার বরাতে টেলিগ্রাফ জানায়, কনভেনট্রি বিল্ডিং সোসাইটির সঙ্গে মামলার অংশ হিসেবে কাগজ-কলমের স্বাক্ষর ছাড়াই এই প্রথম একটি বন্ধকী দলিল গ্রহণ করা হলো।
এই দলিলে গৃহ মালিককে কলম ব্যবহার করে স্বাক্ষর দিতে হয়নি। নতুন এই সেবায় বন্ধকী দলিলের ডিজিটাল সংস্করণ তৈরি করা হয়। ঋণগৃহিতা অনলাইনে তার ডিজিটাল স্বাক্ষর প্রদান করেন।
ভূমি রেজিস্ট্রি কার্যালয় আগামি দুই মাসের ভেতর জাতীয় পর্যায়ে এই অনলাইন ভেরিফিকেশন পরিসেবা চালু করতে যাচ্ছে।
এই অনলাইন পরিসেবা চালু হলে স্বাক্ষী ও কাগজের দলিল জমা দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা আর থাকছে না, ব্রিটিশ দৈনিক টেলিগ্রাফকে এই তথ্য দিয়েছে লন্ডনের ভূমি রেজিস্ট্রি অফিস।
তবে বন্ধকী দলিলে ডিজিটাল স্বাক্ষর সেবা গ্রহণে গৃহমালিককে আগে নিজের পরিচয় নিশ্চিত করতে হবে। এজন্য গৃহমালিককে তার ব্যক্তিগত তথ্য জানাতে হবে গভ ডটইউকে পোর্টালে।
প্রথম দিকে শুধু পুনঃবন্ধকীকরণ গ্রাহকরাই এই ডিজিটাল সুবিধাটি পাবেন। নতুন বন্ধকীর প্রথম ক্রেতা ও গ্রাহকদের আরো কিছুদিন কাগজ-কলম ব্যবহার করতে হবে।
এইচএম ল্যান্ড রেজিস্ট্রি প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রধান ভূমি নিবন্ধক গ্রাহাম ফ্যার‌্যান্ট বলেন: “গৃহমালিকদের সুবিধায় আমরা একটি সহজ ও দ্রুত সেবা নিশ্চিত করেছি। আমরা এই সেবা জাতীয় পর্যায়ে চালু করার চেষ্টা করছি এবং এজন্য আমরা আরো আইনজীবী ও ঋণদাতাদের সাথে কাজ করবো।”
কনভেনট্রি বিল্ডিং সোসাইটির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা পিটার ফ্রস্ট বলেন: “সম্পত্তির লেনদেন প্রক্রিয়া দ্রুত করার জন্য আমরা এইচএম ল্যান্ড রেজিস্ট্রি ও এন্যাক্ট কনভেয়ান্সিং এর সাথে কাজ করতে পেরে আনন্দিত।
প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া ইতিবাচক ছিল। গ্রাহকরা এই পদ্ধতিকে সহজ, দ্রুত এবং নিরাপদ ভাবছেন। এই উদ্যোগটি শুধু পুনঃবন্ধকীকরণের জন্য চালু হলেও আগামিতে আমরা সম্পত্তি ক্রয়ের ক্ষেত্রেও এই পদ্ধতি চালু করতে আগ্রহী।”
এ নিয়ে এস্টেট এজেন্ট টুডে সাইটটি জানাচ্ছে, ২০২২ সালের মধ্যে কার্যালয়ের দৈনন্দিন কাজকে ডিজিটালকরণ ও স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতির আওতায় নিয়ে আসার দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা রয়েছে লন্ডনের এই ভূমি রেজিস্ট্রি কার্যালয়ের।