পেশাদার নির্মাণ শ্রমিক তৈরি করতে বিশেষ প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার

44

দেশের বাহিরে কর্মরত নির্মাণ শ্রমিকদের কষ্টার্জিত অর্থ দেশের রেমিট্যান্স বৃদ্ধিতে রাখছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। বহির্বিশ্বে প্রশিক্ষিত ও দক্ষ শ্রমিকের চাহিদা বাড়তে থাকায়, পেশাদার নির্মাণশ্রমিক তৈরি করতে বিশেষ প্রকল্প হাতে নিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। এ প্রকল্পের আওতায় ৫ লক্ষ যুবককে প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে পেশাদার নির্মাণ শ্রমিকে রূপান্তরিত করবে সরকার। আশার কথা হচ্ছে, প্রশিক্ষণ শেষে নির্মাণশ্রমিকরা পাবে একটি সনদপত্র। পেশাগত দক্ষতা প্রমান করতে সেই সনদ তাঁরা দেশে-বিদেশে দেখাতে পারবেন। ন্যায্য পারিশ্রমিক পেতে দেশের বাইরে শ্রমিকদের হতে হবে না আর বঞ্চনার শিকার। এই প্রকল্পের মাধ্যমে প্রথমে ৩৮৪ জন প্রকৌশলীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। প্রতি জেলায় দুজন প্রকৌশলী ও চারজন ডিপ্লোমা প্রকৌশলীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। সেই প্রকৌশলীরা ৬৪ জেলায় মাঠপর্যায়ে আগামী পাঁচ বছরে নির্মাণশ্রমিকদের ১২টি আলাদা আলাদা ট্রেডে প্রশিক্ষণ দেবেন। প্রতি ব্যাচে ২০ জন শ্রমিককে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। হাতেকলমে তাঁরা শিখবেন মোট ৬০ দিন। প্রশিক্ষণের সময় শ্রমিকেরা প্রতিদিন খাওয়া ছাড়াও যাতায়াতের জন্য ভাতা পাবেন। প্রতি বছর পাঁচ থেকে ছয় লাখ লোকের কর্মসংস্থান হচ্ছে বিদেশে। সরকারের এ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতি বছর দক্ষ শ্রমিক প্রেরণ সম্ভব হবে, যার ফলশ্রুতিতে উজ্জ¦ল হবে দেশের ভাবমূর্তি, বাড়বে রেমিটেন্সের পরিমান। দেশের বেকার সমস্যা নিরসনে যুগান্তকারী এ পদক্ষেপ বদলে দেবে দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থার চিত্র ও বহির্বিশ্বে বাড়বে বাংলাদেশী শ্রমিকের চাহিদা।