রাজীবকে চাকরি দেওয়ার আশ্বাস সরকারের

4

গত ৪ এপ্রিল বাস চালকের বেপরোয়া গাড়ি চালানোর কারণে বলি হয় তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী রাজীবের ডান হাত। এ ভয়াবহ দুর্ঘটনার পর ভবিষ্যতে স্বাভাবিক জীবন যাপনে সাহায্য করতে রাজীবকে চিকিৎসার ব্যয় বহনসহ সরকারি চাকরি দিয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দেয় সরকার। সড়ক দুর্ঘটনা কমাতে সরকার নানামুখী পদক্ষেপ নিলেও কমছে না সড়ক দুর্ঘটনা। চালকদের ট্রাফিক সিগন্যাল না মানার প্রবণতাকেই এর মূলে দায়ী করছে সরকার। ট্রাফিক রুলস না মেনে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করা ছাড়াও রাস্তায় গণপরিবহন সমূহ যেন নেমেছে এক প্রতিযোগিতায়। আর এই প্রতিযোগিতায় চলে অনিয়মতান্ত্রিক ও ঝুঁকিপূর্ণ ওভারটেক। আর এমনি এক ওভারটেকের কারণে দু বাসের পাশাপাশি সংঘাতে এক হাত দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় এতিম মেধাবী শিক্ষার্থী রাজীবের। তার চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করার সামর্থ্য নেই তার পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনের। কিন্তু তাই বলে কি থেমে থাকবে তার চিকিৎসা? সরকার রাজীবের এই অসহায়ত্বে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে তার চিকিৎসার সমস্ত ব্যয় বহন করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে। শুধু তাই নয় রাজীবের ভবিষ্যৎ জীবনের কথা চিন্তা করে সরকার রাজীব সুস্থ হলে তাকে সরকারি চাকরি প্রদানেরও আশ্বাস দেয়। ৫ এপ্রিল স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম রাজীবকে হাসপাতালে দেখতে গেলে এ কথা জানান। মানবিক দৃষ্টি কোণ থেকে সরকারের এ সিদ্ধান্ত প্রমাণ করলো দেশের মানুষের বিপদে আপদে সদা জাগ্রত বর্তমান সরকার।