পহেলা বৈশাখ কে সামনে রেখে বাড়বে মুরগির দাম

24

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার বাজারে মাছের আমদানী কম থাকায় বেড়েছে মাছের দাম। অন্যদিকে গরুর মাংসের দাম স্থিতিশীল থাকলেও খাসির মাংসের দাম বেশী। মুরগির বাজারে সব ধরনের মুরগির দাম বেড়েছে তবে পহেলা বৈশাখে আরো দাম বাড়বে বলে জানান মুরগি বিক্রেতারা। এদিকে কয়েকটা সবজির দাম বেশি থাকলেও অন্যাণ্য সবজির দাম কম তবে পহেলা বৈশাখে কাঁচা মরিচ, সজনার দাম বাড়বে তাছাড়া অন্যান্য সবজি থাকবে স্থিতিশীল বলে জানান সবজি বিক্রেতারা। অন্যদিকে মুদি পণ্যের মধ্যে এ সপ্তাহে ডিমের দাম বাড়লেও অন্যান্য মুদি পণ্য রয়েছে স্থিতিশীল।
নিউমার্কেট মাছ বাজারে গিয়ে দেখা যায় ,মাছের আমদানী কম থাকায় বেড়েছে মাছের দাম। নিউমার্কেটের মাছ বিক্রেতা আব্দুল হালিম ও মুকুল রহমানের সাথে কথা হলে তারা জানান, বাজারে আজকে ছোট ও বড় মাছের আমদানী কম। বৃহস্পতিবার বৃষ্টি হওয়ায় জেলেরা মাছ ধরেনি যার কারণে মাছের দাম বাড়তি তারা আরো বলেন পহেলা বৈশাখে ইলিশ মাছের দাম বাড়বে। তারা মাছের দাম বলেন, কাতল ২৮০, তেলাপোয়া ১৬০ টাকা, রুই ২২০, মিরর কার্প ১৬০, চিংড়ি ৮০০, কাতল ৩০০, ইলিশ ৮০০, আইড় ৭০০, ট্যাংরা ৮০০, পাবদা ১২০০, জাপানি রুই ১৬০, ময়ার মাছ ৪০০ গত সপ্তাহে থেকে এই সপ্তাহে কেজিতে ৩০-৪০ টাকা বেড়েছে সব ধরনের মাছের দাম ।
অপরদিকে গরুর মাংস গত সপ্তাহের দামে বিক্রি হলেও এ সপ্তাহে খাসির মাংসের দাম বেশি। গত সপ্তাহে ৭০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করলেও শুক্রবার বিক্রি করেছে ৭২০ টাকা কেজি দরে। মুরগি বাজারে গিয়ে দেখা যায়, গত সপ্তাহ থেকে এই সপ্তাহে সব ধরনের মুরগির দাম বেড়েছে, বলছিলেন নিউমার্কেটের মুরগি ব্যবসায়ী রুবেল। তবে পহেলা বৈশাখকে সামনে রেখে মুরগির দাম আরো বাড়বে বলে বলছিলেন নিউমার্কেটের মুরগি ব্যবসায়ী রুবেল। তাঁরা জানান, পাকিস্তানি ২১০, লাললেয়ার ১৭০ টাকা, সাদা লেয়ার ১৪০, সোনালী ২০০, দেশী মুরগি ৩৫০, ব্রয়লার ১২০, প্যারেন্টস ১৬০, রাজহাঁস ১০০-১২০০, ছোট টা ৩০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
অপর দিকে এদিকে নিউমার্কেট সবজি কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়,পটল, ঝিংগাসহ কয়েককটি সবজির দাম বেশি থাকলেও বেশিরভাগ সবজির দাম কম রয়েছে বলে জানান সবজি বিক্রেতারা। তাদের কাছ থেকে জানা যায়, শসা ৩৫, করলা ৪০, পটল ৫০, সজনা ৬০, ফুলকপি ৮০, টমেটো ৩০, লাউ ৩০, আলু ১২-১৩, বেগুন ২০,গাজর ৩০, শসা ৩০, কাঁচামরিচ ২০-৩০, সজনা ৫০, ডাটা ৫০, ঝিংগা ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। নিউমার্কেটের মুদি দোকানী হুমায়ন কবির জানান, এ সপ্তাহে ডিমের দাম বাড়লেও অন্যান্য মুদি পন্য রয়েছে স্থিতিশীল। তিনি জানান পহেলা বৈশাখে চাল, ডালের দাম বাড়বে। তিনি বলেন, পেয়াজ ২০-২২ টাকা, মোটা স্বর্না চাল ৩৭, আটাশ ৫০-৫২, মিনিকেট ৬০-৬২, রসুন ৯০, চিনি ৫৬, আদা ৭০, ডিম ২৩, মসুর ডাল ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মাছ ও সবজি কিনতে আসা কযেকজন ক্রেতার সাথে কথা হলে তারা জানান, মাছের দাম বেশি। তারা আরো বলেন মাছের দাম এরকম বেশি থাকলে অনেক সমস্যা হয়। মধ্যম আয়ের মানুষদের জন্য বেশি দামে পন্য কিনতে হিমশিম খেতে হয়। কাজেই তাঁরাও চান বাজারে সকল পণ্যের দাম যেন সহনীয় পর্যায়ে থকে।